বেঙ্গালুরু: বিনোদন জগতে আরো এক মৃত্যু। চলে গেলেন দক্ষিণী অভিনেতা চিরঞ্জীবী সরজা। মৃত্যুকালে বয়স হয়েছিল মাত্র ৩৯। জানা যাচ্ছে, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে রবিবার সন্ধ্যেয় শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। সংবাদ মাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে, শনিবার শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন এই কন্নড় অভিনেতা। আর তারপরই তাঁকে ভর্তি করা হয় বেঙ্গালুরুর জয়নগর হাসপাতালে।

চিরঞ্জীবীর মৃত্যুতে কর্নাটকের চলচ্চিত্র দুনিয়ায় এবং তাঁর অনুরাগী মহলে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। স্ত্রী মেঘনা রাজের সঙ্গে থাকতেন চিরঞ্জীবী। তিনি অভিনেতাকে হাসপাতালে নিয়ে যান। অ্যাকশন অভিনেতা অর্জুন সরজার সম্পর্কে ভাই হন চিরঞ্জীবী। তিনি অভিনেতা ধ্রুব সরজার বড় ভাই। এছাড়াও বিখ্যাত অভিনেতা শক্তি প্রসাদ এর সম্পর্কে নাতি চিরঞ্জীবী।

দক্ষিণী অভিনেত্রী প্রিয়মনি চিরঞ্জীবীর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন। তিনি একটি টুইট করেছেন, “চিরঞ্জীবীর মৃত্যুর খবরে শোকাহত হয়েছি। ওর হাসি মুখটা কখনো ভুলতে পারবোনা। ওর পরিবারের প্রতি সমবেদনা রইল।”
জনপ্রিয় শিল্পী বিকাশ নায়েক চিরঞ্জীবীর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে টুইট করেছেন, “চিরঞ্জীবীর মৃত্যুর খবরে শোকাহত এবং বিধ্বস্ত। বিশ্বাস করতে পারছি না। এত গুণী ও দারুন একজন মানুষ খুব তাড়াতাড়ি চলে গেলেন। ওঁর পরিবারের প্রতি আমি সমব্যথী। ওঁর আত্মার শান্তি কামনা করি।”

প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেট তারকা অনিল কুম্বলে চিরঞ্জীবীর মৃত্যুতে শোকাহত। তিনি তাঁর মাইক্রোব্লগিং সাইটে লিখেছেন, “চিরঞ্জিবী সরজার মৃত্যুর খবরে গভীরভাবে শোকাহত। অল্প বয়সী একজন গুণী মানুষ খুব তাড়াতাড়ি চলে গেলেন। ওর পরিবার ও বন্ধুদের প্রতি সমবেদনা জানাই।”

২০০৯ সালে বড় পর্দায় প্রথম আত্মপ্রকাশ কন্নড় অভিনেতা চিরঞ্জীবীর। প্রথম ছবির নাম বায়ুপুত্র। দর্শকমহলে ছবির জন্য প্রশংসা পেয়েছিলেন তিনি। তাঁর উল্লেখযোগ্য ছবিগুলির মধ্যে রয়েছে রামলীলা, আম্মা আই লাভ ইউ, চিরু, চন্দ্রলেখা, আটাগারা। শেষ তাঁকে দেখা গিয়েছিল শিবার্যুনা ছবিটিতে। ছবিটি মুক্তি পায় ২০২০-র ১২ মার্চে। কিন্তু করো না প্রকল্পের জন্য হল থেকে বন্ধ করা হয় সেই ছবি।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ