রাঁচি: প্রথম শীতেই নক আউট কালিম্পং। ঠাণ্ডা বলতে কী বোঝায় তারই উদাহরণ কাঁকে। ৩ ডিগ্রি সেলশিয়াস নিয়ে হু হু করছে ঝাড়খণ্ডের এই শহর ও আসে পাশের এলাকা।

এদিকে অপেক্ষার কয়েকটি ঘণ্টা। রাজনৈতিক তাপ ও প্রবল ঘোড়া কেনা বেচার পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। সোমবার বিধানসভা নির্বাচনের ফল ঘোষণা ঝাড়খণ্ডে।

এরই মাঝে তাপমাত্রা সূচকের ক্রমাগত নিম্নগামী গতিতে হাড় কাঁপছে রাজ্যবাসীর। আবহাওয়া বিভাগের রিপোর্ট, রবিবার রাঁচি জেলার কাঁকে-তে সর্বনিম্ন ৩ ডিগ্রি সেলশিয়াস তাপমাত্রা ধরা পড়েছে।

রিপোর্ট বলছে পশ্চিমবঙ্গের দুই আন্তর্জাতিক শৈলশহর দার্জিলিং ও কালিম্পংয়ের তাপমাত্রা এখনো ৬-৯ ডিগ্রি সেলশিয়াসের মধ্যেই ঘোরাফেরা করছে। এই দুই শৈলশহরকে শীতের দাপটে ঝাড়খণ্ডের কাঁকে করেছে কুপোকাত।

শীত মরসুমে বরাবরই কাঁকে তাপমাত্রার সূচকে চমক তৈরি করে। এবারও তাই হয়েছে। নির্বাচন চলাকালীন কাঁকের তাপমাত্রা নেমেছিল ৫ ডিগ্রিতে।

কাঁকে যদি কাঁপায়, তবে ঝাড়খণ্ডের বাকি অংশ কম যায় না। ছোটনাগপুর ও পালামৌ জঙ্গল এলাকার তাপমাত্রা হু হু করে নামছে। রাজধানী রাঁচিতেও প্রবল ঠাণ্ডা।

তবে ঠাণ্ডার মাঝে গরম হাওয়া মানেই নির্বাচনের ফল। ৫ দফা ভোটের পর বুথ ফেরত সমীক্ষার রিপোর্ট বলছে বিজেপি ও বিরোধী মহাজোটের কাঁটায় কাঁটায় টক্কর।

ফলাফলের ইঙ্গিতে স্পষ্ট ‘ অন্যান্য ‘ দলগুলির আসন নিয়ে তীব্র সমীকরণের। কারণ, বিজেপি বনাম কংগ্রেস-জেএমএম-আরজেডি মহাজোটের আসন প্রাপ্তির ফারাক খুবই কম।

রাজনৈতিক মহলের ধারণা, সমীক্ষা রিপোর্ট মিললে ঝাড়খণ্ডে তৈরি হবে মহারাষ্ট্রের মতো সরকার গঠন নিয়ে বিতর্কিত অবস্থা। এই আবহাওয়ায় কাঁকে যতই ৩ ডিগ্রি ঠাণ্ডা হোক, আদতে গরম হয়ে রয়েছে ঝাড়খণ্ড ।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।