নয়াদিল্লি: ফের দেশদ্রোহিতার কারণে জেলে যেতে হতে পারে কানহাইয়া কুমারকে। একই সঙ্গে তাঁর দোসর হতে চলেছে উমর খলিদ, অনির্বাণ বন্দ্যোপাধ্যায়-সহ একাধিক নেতা।

দিল্লি পুশের সূত্রে প্রকাশ্যে এসেছে এই খবর। সেই সূত্রের খবর অনুযায়ী, ইতিমধযেই জানহাইয়া কুমার সহ ১১ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট তৈরি করে ফেলেছে দিল্লি পুলিশ। খুব শীঘ্রই তা আদালতে পেশ করা হবে।

২০১৬ সালের শুরুর দিকে সংসদ হামলায় দোষী আফজল গুরুর ফাঁসির বিরুদ্ধে জহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে সভার আয়োজন করা হয়। যেখানে ভারত এবং ভারতীয় সেনার বিরুদ্ধে স্লোগান দেওয়া হয়েছিল। সেই সময়ে ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদ ছিল বামেদের দখলে। যারত সভাপতি ছিল কানহাইয়া কুমার।

আফজল গুরুর পক্ষে স্লোগান দেওয়ায় লিশের কাছে কানহাইয়া কুমার, উমর খলিদ, অনির্বাণ বন্দ্যোপাধ্যায়-সহ একাধিক ছাত্রনেতার নামে দেশদ্রোহের অভিযোগ আনে এভিবিপি। কানহাইয়া-উমর-অনির্বাণ গ্রেফতার হয়ে জেলেও ছিল। পরে অবশ্য জামিনে মুক্তি পেয়েছে তারা। সম্প্রতি দিল্লি পুলিশ জানিয়েছে, ওই তিন নেতা-সহ মোট এগারো জনের নামে চার্জশিট প্রস্তুত হয়েছে। বাকি আট জন কাশ্মীরের পড়ুয়া। ওই এগারো জনের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহের অভিযোগ রয়েছে।