মুম্বই: অযোধ্যায় রাম মন্দিরের ভূমি পূজা নিয়ে সংবাদমাধ্যমের কাছে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত। তার মতে এই ভূমি পূজার মাধ্যমে ভারতের রামরাজ্য শুরু হল। কঙ্গনা আগামীতে অপরাজিত অযোধ্যা নামে একটি ছবি পরিচালনা করতে চলেছেন। এই ছবিতে রাম মন্দিরের ভূমি পূজা নিয়েও বেশ কিছু অংশ তিনি রাখবেন বলে সম্প্রতি জানিয়েছেন।

রাম মন্দিরের বিষয়ে তার কেমন লাগছে জানতে চাইলে রিপাবলিক টিভির কাছে কঙ্গনা জানান, “এই রাম মন্দির শুধুমাত্র একটা মন্দির নয়। এটা আবেগ। আমার জন্য অযোধ্যা খুবই তাৎপর্যপূর্ণ আর এই গত ৫০০-৬০০ বছর ধরে চলা যাত্রার সঙ্গে জড়িত আমাদের সভ্যতা সত্যি অভূতপূর্ব আমার কাছে। আমাদের কাছে যার সময় রয়েছে তা আমি নষ্ট করতে চাই না। আমি এমন কোন কিছু করতে চাই যা আমাদের জীবন যাপনে বদল আনে। আমি প্রাচীন যুগ সম্পর্কে যেটুকু পরেছি বুঝেছি আমাদের সমাজ সারাবিশ্বে খুবই আভিজাত্যপূর্ণ ছিল। কিন্তু সময়ের সঙ্গে সঙ্গে আমরা শুধু আর্থিক দিক থেকে ক্ষতিগ্রস্ত হয়নি। ভারতীয়রা আমাদের জন্য যা রেখে গিয়েছেন সেগুলি সমস্ত হারিয়েছে আমরা। তারা আমাদের সভ্যতার জন্য কিছু নীতি তৈরি করে গিয়েছিলেন।”

কঙ্গনা মনে করছেন এটাই ঠিক সময় সমাজের পরিবর্তন আনার। কঙ্গনা বলছেন, “শুধুমাত্র খাদ্য বস্ত্র বাসস্থান ছাড়াও আমাদের আর কিসের অভাব আছে সমাজে সেটা দেখা উচিত।” আর তার সূত্রপাত এখনই হওয়ার জন্য উপযুক্ত বলে মনে করছেন বলিউডের রিভলবার রানি। তার মতে এই ভূমি পুজোর সঙ্গেই রাম রাজ্যের প্রতিষ্ঠা হল ভারতবর্ষে। তার কথায় রাম একজন শুধু ভগবানই নন। তিনি সভ্যতার প্রতীক এবং এক জীবন দর্শন।

আর তাই নিজের ছবি অপরাজিত অযোধ্যায় এ রাম মন্দিরের সঙ্গে জড়িত ইতিহাসকে তুলে ধরবেন কঙ্গনা। তার সঙ্গে এই ছবির চিত্রনাট্যের লিখবেন কেভি বিজয়েন্দ্র প্রসাদ। কঙ্গনার ছবি মণিকর্ণিকা তেও তার সঙ্গে কাজ করেছিলেন বিজয়েন্দ্র।

প্রসঙ্গত, বাবরি মসজিদ ধ্বংস করে সেখানে আরেকটি মন্দির গড়ে তোলার পিছনে রয়েছে বহু ইতিহাস যা ব্রিটিশরাজ থেকে চলে আসছে। এর সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা বহু রাজনীতিও। কট্টর হিন্দুত্ত্ববাদী এবং গেরুয়া শিবির প্রথম থেকেই দাবি করে এসেছে এখানেই জন্মেছিলেন তাদের রাম লাল্লা। আর তাই ১৯৮৬ সালে বাবরি মসজিদ কে ঘিরে অযোধ্যায় চলেছে ব্যাপক অশান্তি। কঙ্গনার ছবিতে এই সমস্ত তাই তুলে ধরা হবে বলে জানা যাচ্ছে। তবে কঙ্গনা যে একেবারেই দক্ষিণপন্থী সে বিষয়ে সকলেই ওয়াকিবহাল।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা