ম্যাঞ্চেস্টার: চলতি বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ড ব্যাটিং অর্ডার অনেকটাই নির্ভরশীল তাঁদের অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনের উপর। ২টি শতরান সহযোগে ৪৮১ রান, গড় ৯৬-র একটু বেশি। ব্যাট হাতে গোটা টুর্নামেন্টে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন কিউয়ি অধিনায়ক। কি ওপেনার মার্টিন গাপতিল সহ বাকি ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার ভিড়ে রান সংগ্রহের নিরিখে দ্বিতীয়স্থানে রয়েছেন অভিজ্ঞ রস টেলর। তাঁর সংগ্রহ ২৬১ রান।

এমতাবস্থায় হাইভোল্টেজ সেমির আগে বুমরাহ-ভুবনেশ্বর-চাহাল সমৃদ্ধ ভারতের বোলিং আক্রমণের সামনে দলের টপ অর্ডারকে গুরুত্বপূর্ণ বার্তা দিলেন উইলিয়ামসন। শেষ চারের লড়াইয়ে নামার আগে গাপতিল সহ প্রথমসারির ব্যাটসম্যানদের মুক্তমনা ব্যাটিং করার পরামর্শ দিলেন অধিনায়ক। ম্যাচের আগেরদিন সাংবাদিক সম্মেলনে বিলেতের আবহাওয়ায় দলের ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার কারণও দর্শালেন তিনি। উইলিয়ামসনের মতে, ‘ইংল্যান্ডের এমন বৈচিত্র্যপূর্ণ আবহাওয়া প্রত্যাশিত ছিল না, যা সম্ভবত ব্যাটসম্যানদের ছন্দে ব্যাঘাত ঘটিয়েছে।’

আরও পড়ুন: বিরাটদের পরিকল্পনামাফিক ক্রিকেট খেলার পরামর্শ কপিলের

তাই কিউয়ি অধিনায়কের মতে মঙ্গলবার ম্যাঞ্চেস্টারের আবহাওয়াও দলের পক্ষে কঠিন হবে। তাই জয়ের জন্য পর্যাপ্ত রান কত হতে পারে সেটা পিচের চরিত্র না বুঝে এখনই বলা সম্ভব নয়। তবে উইলিয়ামসন জানালেন, ‘সেমিফাইনালের শরিক হতে পেরে ছেলেরা উত্তেজিত। সুযোগের সদ্ব্যবহার করে তাঁরা ভয়ডরহীন ক্রিকেট খেলতে বদ্ধপরিকর এবং এর ফলে আমাদের ম্যাচ জয়ের সেরা সুযোগটা তৈরি হতে পারে।’

আরও পড়ুন: উইলিয়ামসনকে ১১ বছর আগের স্মৃতি স্মরণ করাতে চান বিরাট

সাংবাদিক সম্মেলনে প্রতিপক্ষ অধিনায়ক বিরাট কোহলি জানিয়েছেন উইলিয়ামসন নিউজিল্যান্ড শিবিরের ‘স্পেশাল’ ব্যাটসম্যান। দলের ব্যাটিং অর্ডারের টেম্পো তাঁর হাতেই রয়েছে এবং উইলিয়ামসনের উইকেট ভারতীয় বোলারদের কাছে মহামূল্যবান। তবে উইলিয়ামসন কোহলির এমন মন্তব্যকে বিশেষ প্রাধান্য দিতে নারাজ। কিউয়ি অধিনায়ক জানালেন, ‘নির্দিষ্টভাবে এমনটা বলা উচিৎ হবে না। অবদান রাখার মত ব্যাটসম্যানের সংখ্যা দলে একাধিক এবং প্রত্যেকেই সমান গুরুত্বপূর্ণ দলের জন্য। সবাই প্রচুর পরিশ্রম করে চলেছি।’

নিজের দল নিয়ে আলোচনার পাশাপাশি উইলিয়ামসনের গলায় ভারতীয় বোলারদের নিয়ে সমীহের সুর। কেনের কথায়, ‘একাধিক ওয়ার্ল্ড ক্লাস বোলারের ভিড়ে ভারতীয় দলের বোলিং আক্রমণ এককথায় দুর্ধর্ষ।’ সবমিলিয়ে গ্রুপের শেষ তিন ম্যাচ হেরে শেষ চার নিশ্চিত করলেও সেমিফাইনালে নতুন করে শুরু করতে চাইছে ২০১৫ বিশ্বকাপ রানার্সরা। উইলিয়ামসন জানাচ্ছেন, ‘শেষ কয়েকবছরে দু’দলই একে অপরকে একাধিকবার হারিয়েছে। তাই দু’দলের কাছেই ফাইনালে ওঠার দারুণ সুযোগ।’