KAngkana

মুম্বইঃ করোনা (Corona) মুক্ত হয়েছেন বলিউডের বিতর্কিত অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত (Kangana Ranaut)। মঙ্গলবার অভিনেত্রী সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও শেয়ার করে জানিয়েছেন, তার করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। এদিনের ভিডিওতে তিনি করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে নিজের লড়াই এবং কীভাবে ঘরোয়া প্রতিকার তাকে সহায়তা করেছে সুস্থ হয়ে ওঠায়, সেকথাও তুলে ধরেছেন।

কিন্তু যেথায় কঙ্গনা, সেথায় বিতর্ক। নিজের কোভিড মুক্ত হওয়ার খবর দেওয়ার সঙ্গে একটি পোস্ট শেয়ার করেন তিনি। সেখানে লিখেছেন, ‘হ্যালো সবাইকে। আজ আমার করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। আমি সবাইকে জানাতে চাই কীভাবে আমি এই ভাইরাসের সঙ্গে লড়াই করেছি। কিন্তু কোভিড ফ্যান ক্লাবকে কষ্ট দিতে নিষেধ করা হয়েছে আমায়। আমাদের চারিপাশে এমন অনেক মানুষ আছেন, যারা ভাইরাসের প্রতি সম্মান না দেখালে রেগে যাবেন। যাই হোক সবাইকে শুভ কামনা এবং ভালোবাসার জন্যে ধন্যবাদ’। নেটমাধ্যমে সমালোচিত হচ্ছে কঙ্গনার এই খোঁচা।

Kangana Ranaut tests negative for Covid-19, says 'I am told not to offend Covid fan clubs' | Entertainment News,The Indian Express

নিজের করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর নিয়েও বিতর্কে জড়িয়েছিলেন বলি ‘কুইন’ (Queen)। করোনা পজিটিভ হওয়ার খবর দেওয়ার সময় নিজের ইনস্টাগ্রামে করোনাকে হুমকি দিয়ে লিখেছিলেন, ‘আমি খুব দ্রুত এই ভাইরাসকে ধ্বংস করব। এটা ভয়ের কিছু নয়। সাধারণ একটি ফ্লু। তাই আপনারা যত ভয় পাবেন, এটা তত আপনাকে ভয় দেখাবে’। তিনি আরও বলেছেন, সংবাদমাধ্যম গুলো করোনাকে নিয়ে খামোখা বাড়াবাড়ি কারছে। তার ফলে মানুষজন বেশি আতঙ্কিত হচ্ছে। করোনা ভাইরাসকে হাইলাইট করা বন্ধ করে দিলে মানুষজনের ভয় কমে যাবে। পরে যদিও অভিনেত্রীর এই পোস্ট ইনস্টাগ্রাম থেকে ডিলিট করে দেওয়া হয়েছে।

সম্প্রতি পশ্চিমবঙ্গে (West Bengal) ভোটের পর সোশ্যাল মিডিয়ায় উস্কানি মূলক মন্তব্য করার অভিযোগ ওঠে কঙ্গনার বিরুদ্ধে। আর এই অভিযোগটি তুলে উল্টোডাঙ্গা থানায় এফআইআর (FIR) দায়ের করেন তৃণমূলের (TMC) মুখপত্র ঋজু দত্ত। এফআইআর এ অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে ঋজু অভিযোগ করেছেন, বাংলার মুখ্যমন্ত্রী (Chief Minister) মমতা বন্ধোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) কে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় কিরুচিকর এবং বিভ্রান্তিমূলক মন্তব্য করেছেন কঙ্গনা। ফলে কঙ্গনার টুইটার (Tweeter) আকাউন্ট চিরতরে ডিলিট করে দেওয়া হয়। টুইটার বন্ধ করে দেওয়া হলেও দমানো যায়নি ‘মণিকর্ণিকা’কে (Manikarnika)। তাই এখন হাতিয়ার ইনস্টাগ্রাম (Instagram)।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.