লাহোর: নেই ইনজি, ইউনিস কিংবা বিশ্বজয়ী ইমরান। বরং পাক উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান কামরান আকমলের বেছে নেওয়া সর্বকালের সেরা একাদশে ঠাঁই পেলেন তিনি নিজেই। ব্যাটসম্যান হিসেবে দলে জায়গা করে নিলেন ভাই উমর আকমলও। এমনই হাস্যকর একাদশ বেছে নেটিজেনদের তীব্র খোরাকের শিকার হলেন কামরান।

সম্প্রতি একটি ইউ টিউব চ্যানেলে সাক্ষাৎকারের মাঝে কামরানকে তাঁর সর্বকালের সেরা পাক একাদশ বেছে নিতে বলেন প্রশ্নকর্তা। সেই দলে উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান হিসেবে নিজেকে জায়গা দেওয়ার পাশাপাশি ব্যাটিং অর্ডারে চার নম্বরে ভাই উমর আকমলকে বেছে নেন তিনি। দেশের সর্বকালের সেরা একাদশে নিজেকে বাছাই করার কারণ হিসেবে আকমল ঘরোয়া এবং আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তাঁর পারফরম্যান্সের কথা তুলে ধরেন। আকমল জানান, ঘরোয়া এবং আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পারফরম্যান্স দিয়ে বিচার করলে সর্বকালের সেরা একাদশে যোগ্য উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান হিসেবে তাঁরই সুযোগ প্রাপ্য।

উল্লেখ্য, দেশের হয়ে ১৫৭টি ওয়ান ডে ম্যাচে উইকেটের পিছনে ১৮৮টি শিকারের (ক্যাচ ও স্টাম্প মিলিয়ে) মালিক আকমল কেরিয়ারের শেষ ওয়ান ডে ম্যাচটি খেলেছেন দু’বছরেরও বেশি সময় আগে। তুলনায় স্টাম্পের পিছনে রেকর্ডের নিরিখে অনেকটাই এগিয়ে থাকা দেশের কিংবদন্তি উইকেটরক্ষক মইন খানের নাম এক্ষেত্রে ধর্তব্যের মধ্যেই আনেননি তিনি। ২১৯টি ওয়ান ডে ম্যাচে মইনের নামের পাশে রয়েছে ২৮৭টি শিকার। পাশাপাশি মিডল অর্ডারে কিংবদন্তি ইনজামাম উল-হক কিংবা ‘ডিপেন্ডবল’ ইউনিস খানের বদলে কামরান বেছে নিয়েছেন তাঁর ভাই উমর আকমলকে। তবে তাঁর সেরা একাদশে জায়গা পেয়েছেন সঈদ আনোয়ার, শাহিদ আফ্রিদি, ওয়াসিম আক্রাম, শোয়েব আখতার কিংবা সাকলিন মুস্তাকের মত দিকপালরা।

কামরানের এই একাদশ নির্বাচন নিয়ে স্বাভাবিকভাবেই মুচকি হাসছেন অনুরাগীরা। সোশ্যাল মিডিয়ায় ধরা পড়েছে অনুয়াগীদের ব্যাঙ্গাত্মক মন্তব্য। কেউ লিখেছেন, কামরান নিজেকে বেছে নিয়েছেন তবু ঠিক আছে। কিন্তু ইনজামাম-ইউনিসকে বাদ দিয়ে উমরকে মেনে নেওয়া যায় না কোনওমতেই। কেউ আবার লিখেছেন অল টাইম গ্রেট ইনজামাম ইউসুফের বদলে হাফিজ আর উমর, আপনি কি লাহোর একাদশ নির্বাচন করেছেন? কারও মতে, একাদশে মাত্র দু’জন স্পেশালিস্ট ব্যাটসম্যান, এমন মাঝারি মানের দল নির্বাচন না করলে কী চলছিল না?

কামরান আকমলের নির্বাচিত সর্বকালের সেরা পাক একাদশ:
সঈদ আনোয়ার, বাবর আজম, মহম্মদ হাফিজ, উমর আকমল, শোয়েব মালিক, শাহিদ আফ্রিদি, আব্দুল রজ্জাক, কামরান আকমল (উইকেটরক্ষক), ওয়াসিম আক্রাম, শোয়েব আখতার ও সাকলিন মুস্তাক।