ওয়াশিংটন: আবারও আমেরিকার প্রেসিডেন্ট পদের জন্য অন্যতম দাবিদার হয়ে উঠলেন একজন মহিলা। অবশ্যই তিনি ডেমোক্র্যাট দলের প্রার্থী। আরও উল্লেখযোগ্য বিষয় হচ্ছে তিনি একজন ভারতীয় বংশদ্ভূত মহিলা।

আলোচিত ব্যক্তির নাম কমলা হ্যারিস। তিনি ২০১৬ সালে প্রথম অ-শ্বেতাঙ্গ মহিলা সেনেটর হিসেবে ক্যালিফোর্নিয়া থেকে নির্বাচিত হন কমলা। তার আগে সানফ্রান্সিস্কোর ডিস্ট্রিক্ট অ্যাটর্নি ও ক্যালিফর্নিয়ার অ্যাটর্নি জেনারেল পদে ছিলেন।

মায়ের সঙ্গে ছোট্ট কমলা

কমলা হ্যারিসের মা শ্যামলা গোপালন ছিলেন দক্ষিণ ভারতের তামিলনাড়ুর বাসিন্দা। তিনি আমেরিকায় ক্যান্সার নিয়ে পড়াশোনা করতে গিয়েছিলেন। সেখানে গিয়ে আলাপ হয় অর্থনীতির ছাত্র ডোনাল্ডের সঙ্গে। এই ডোনাল্ড ছিলেন জামাইকার নাগরিক। অল্প দিনেই তাঁদের আলাপ পরিণয়ে রূপান্তরিত হয়। ওকল্যান্ডে এই দম্পতির প্রথম সন্তান কমলা জন্ম নেয় ১৯৬৪ সালে।

প্রেসিডেন্ট পদের জন্য তাঁর নাম ঘোষণা হতেই একটি ভিডিও প্রকাশ করেছেন সেনেটর কমলা। সেই ভিডিয়োয় তিনি বলেছেন, ‘‘আসুন এক সঙ্গে, হাত মিলিয়ে কাজ করি। নিজেদের ভবিষ্যতের রাশ নিজেদের হাতে নিই। আমাদের জন্য, আমাদের সন্তানদের জন্য, আমাদের দেশের জন্য।’’ স্বাস্থ্য পরিষেবা, মধ্যবিত্ত জীবনধারণের দৈনন্দিন খরচ কমানো এবং অপরাধ দমনের বিষয়গুলির উপরেই প্রচারে জোর দেবেন বলে জানিয়েছেন কমলা।

স্বামীর সঙ্গে কমলা

জন্মভূমি ওকল্যান্ড থেকেই নির্বাচনী প্রচার শুরু করবেন কমলা হ্যারিস। চলতি মাসের শেষের দিক থেকেই শুরু হবে প্রচার। প্রচারের প্রধান কেন্দ্র হবে মেরিল্যান্ডের বল্টিমোরে, দ্বিতীয় দফতরটি ক্যালিফর্নিয়ার ওকল্যান্ডে। ২০২০ সালের নির্বাচনের জন্য তাঁর স্লোগান, ‘মানুষের জন্য’!

অন্যদিকে আগামী নির্বাচনেও রিপাবলিকান দলের প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী সেই ডোনাল্ড ট্রাম্প। তাঁর অন্যতম প্রধান সমালোচক কমলা নির্বাচনে কতটা টক্কর দিতে পারেন সেটাই এখন দেখার বিষয়।