মুম্বই: অস্ত্রোপচার হল মেগাস্টার ও মক্কাল নিধি মইয়ম দলের প্রতিষ্ঠাতা কমল হাসানের৷ তাঁর টিবিয়ার হাড়ে সমস্যা ছিল৷ তবে অস্ত্রোপচারের পর সুস্থই রয়েছেন অভিনেতা৷ চেন্নাইয়ের একটি বেসরকারি হাসপাতালে অভিনেতার অস্ত্রোপচার হয়৷

মঙ্গলবার সকালে টুইটারে তাঁর মেয়ে শ্রুতি হাসান ও অক্ষরা হাসান একটি যৌথ বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছেন, আপাতত সুস্থই রয়েছেন কমল হাসান৷ তবে আগামী ৪ থেকে ৫ দিন তাঁকে হাসপাতলেই থাকতে হবে৷

তাঁকে পর্যবেক্ষণে রাখবেন চিকিৎসকরা৷ অভিনেতার দুই মেয়ে কমল হাসানের শারীরিক উন্নতির জন্য প্রার্থনা ও সমর্থনের কারণে সমস্ত অনুরাগীদের ধন্যবাদ জানান৷

হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদের কৃতজ্ঞতা জানান তাঁরা৷ কিছুদিন বিশ্রামের পর কমল হাসান যে আগের মতোই সবার সঙ্গে দেখা করতে পারবেন, তাও জানান তাঁরা। কমল হাসান নিজেই টুইটারে তাঁর অস্ত্রোপচারের খবর জানিয়েছিলেন৷ লিখেছিলেন, কয়েক বছর আগে তাঁর একটি দুর্ঘটনা ঘটেছিল৷

সেই কারণেই তাঁকে অস্ত্রোপচার করাতে হবে৷ ততদিন পর্যন্ত তাঁকে বিশ্রাম নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন চিকিৎসকরা৷ তাই তাঁকে তাঁর পেশাগত ও রাজনৈতিক দায়িত্ব থেকে বিরত থাকতে হচ্ছে৷

তামিলনাড়ুর মানুষের থেকে তিনি যে পরিমাণ ভালোবাসা পান, তা তাঁকে যন্ত্রণা ভোলাতে সাহায্য করে৷ তাঁর নির্বাচনী প্রচারের সময়ও ভুগেছেন তিনি৷

আগামী এপ্রিল-মে মাসে তামিলনাড়ুর নির্বাচনের জন্য ডিসেম্বর থেকে প্রচার শুরু করেন তিনি৷ গত কয়েক সপ্তাহ তিনি প্রায় ৫ হাজার কিলোমিটার সফর করেন৷ তখন পায়ে যন্ত্রণা হত৷

তবে তখন তিনি বিষয়টিকে আমল দেননি৷ এবার চিকিৎসকদের পরামর্শ মেনে অস্ত্রোপচার করিয়ে নিলেন তিনি৷ এবার বিশ্রাম৷ সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে তবেই কাজে ফিরবেন বলে জানিয়েছেন কমল হাসান৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.