মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথ৷

ভোপাল: একে তো প্রবল গরম৷ তার উপর লোডশেডিং৷ এই জোড়া ফলায় বিদ্ধ সাধারণ মানুষ৷ দিনের একটা নির্দিষ্ট সময় বিদ্যুত না থাকার জন্য সরকারকেই দুষছেন রাজ্যবাসী৷ যদিও সরকারের দাবি, এই লোডশেডিংয়ের সমস্যা মানুষের তৈরি৷ অর্থাৎ ‘ম্যানমেড’৷ পরিস্কার করে না জানালেও কংগ্রেস শাসিত মধ্যপ্রদেশ সরকার লোডশেডিংয়ের পিছনে বিজেপি হাত দেখতে পাচ্ছে৷

আরও পড়ুন: পশ্চিমি দেশের তুলনায় ভারতের রাজনৈতিক দলের গুগল-ফেসবুকে খরচ কম

কমলনাথ সরকারের দাবি, রাজ্যে বিদ্যুতের কোনও ঘাটতি নেই৷ কিন্তু তারপরেও লোডশেডিং হয়েই চলেছে৷ মধ্যপ্রদেশের বেশ কিছু জায়গা গত কয়েকদিন ধরে অন্ধকারে ডুবে থাকছে৷ এই নিয়ে এলাকাবাসীর ক্ষোভ চরমে৷ বিজেপিও এই নিয়ে সরব৷ বিক্ষোভের আঁচ যাতে সরকারের ঘাড়ে না চাপে তার জন্য আগেই থেকেই দায় ঝেড়ে ফেলল মধ্যপ্রদেশ সরকার৷ লোডশেডিংয়ের পিছনে বিজেপির চক্রান্ত খুঁজে পেয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী কমলনাথ৷ সরাসরি নাম না নিয়ে ফলাও করে খবরের কাগজে বিজ্ঞাপন দিয়ে বিজেপির ষড়যন্ত্রের কথা তুলে ধরেছেন৷

বিজ্ঞাপনে সরকার সবাইকে আশ্বস্ত করে জানিয়েছে, রাজ্যে বিদ্যুত পরিষেবায় কোনও সমস্যা নেই৷ গত কয়েকদিন ধরে বিভিন্ন জায়গা থেকে যে লোডশেডিংয়ের খবর পাওয়া যাচ্ছে তার পিছনে অন্য কারণ কাজ করছে৷ রাজ্যে বিদ্যুতের কোনও ঘাটতি নেই৷ এই সমস্যা মানুষের একাংশের তৈরি৷ বিদ্যুত পরিষেবায় ব্যাহত ঘটাতে ইচ্ছাকৃত ভাবে এই কাজ ঘটানো হচ্ছে৷

আরও পড়ুন: গ্লোবাল লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড পাচ্ছেন ভারতীয় গুগল কর্তা সুন্দর পিচাই

দিন কয়েক আগে রাজ্যের লোডশেডিং নিয়ে কমলনাথ সরকারকে তোপ দাগে বিজেপি৷ অভিযোগ করে বলে, নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুত পরিষেবা দিতে ব্যর্থ রাজ্য সরকার৷ বিজেপির অভিযোগ গায়ে মাখতে নারাজ মুখ্যমন্ত্রী কমলনাথ৷ পাল্টা এর দায় বিজেপির ঘাড়ে চাপিয়ে দিলেন তিনি৷