পাটনা: জন্মসূত্রে তিনি হিন্দু৷ কিন্তু হিন্দুত্বের অর্থ পর্যন্ত বোঝেন না৷ আর সেই অর্থ বুঝতে গেলে তাঁকে ফের হিন্দু হয়ে জন্মগ্রহণ করতে হবে৷ শনিবার মাক্কাল নিধি মাইয়ান দলের প্রধান কমল হাসানকে এই ভাবেই তোপ দাগেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গিরিরাজ সিং৷ পাশাপাশি জানান, তাঁর গ্রেফতারির ভয় না মেলেও চলবে৷ কারণ তিনি ‘‘মুসলিম’’৷

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী এদিন বিহারের পাটনায় বলেন বলেন, ‘‘নিজেকে বুদ্ধিজীবী প্রমাণ করতে কমল হাসান মুসলিমদের হয়ে সাফাই গাইছে৷ কিন্তু হিন্দুদের কথা বলতে ও বুঝতে গেলে তাঁকে অন্তত ১০০ বছর প্রচুর পড়াশোনা ও বই পড়তে হবে৷ তিনি রাজনীতি করে নিজেকে বড় মাপের রাজনীতিক হিসাবে প্রতিষ্ঠা করতে চাইছেন৷ কিন্তু এগুলি করে কোনও লাভ হবে না৷’’

বিগত কয়েকদিন ধরেই বিভিন্ন মন্তব্যের জেরে বিতর্কের শিরোনামে অভিনেতা এবং মাক্কাল নীধি মইয়ামের প্রতিষ্ঠাতা কমল হাসান৷ এইসব বিতর্কের রেশ থাকতে থাকতেই শুক্রবার ফের নয়া মন্তব্য করে ঝড় তুললেন তিনি৷ তিনি জানান, হিন্দু শব্দটি বিদেশিদের দেওয়া৷

কমল হাসান তাঁর একটি ট্যুইটে জানান, ফার্স্ট মিলেনিয়াম সিই-তে দক্ষিণ ভারতের কোনও সাধু-সন্ত-কবিদের লেখায় হিন্দু নিয়ে কোনও কথা পাওয়া যায়নি৷ ১২ জন আলোয়ান বা নয়নমাররাও কোথাও হিন্দু কথাটি বলেননি৷ মুঘলদের ভারতে প্রবেশের আগে হিন্দু শব্দের কোনও অস্তিত্ব ছিল না বলেই মনে করেন তিনি৷

উল্লেখ্য, গডসে নিয়ে মন্তব্যের জন্য সম্প্রতি শিরোনামে আসেন রাজনীতিক তথা অভিনেতা কমল হাসান। হিন্দু সন্ত্রাস নিয়ে মন্তব্য করেছিলেন তিনি। তিনি বলেছিলেন, ‘প্রত্যেক ধর্মের নিজস্ব সন্ত্রাসবাদী রয়েছে।’ আগের মন্তব্য নিয়ে কার্যত নিজের অবস্থান স্পষ্ট করলেন কমল হাসান।

কমলের কথায়, ‘‘এ কথা আমি যে প্রথমবার বলছি, এমনটা নয়। আসলে সন্ত্রাসবাদ তো কোনও ধর্মের সঙ্গে সংযুক্ত নয়। যে কোনও ধর্মেই সন্ত্রাসী থাকতে পারে। হিন্দুরা যে খুব পবিত্র, এ কথা জোর দিয়ে বলতে পারি না।’’

এরও আগে কমল হাসান বলেছিলেন, ‘স্বাধীন ভারতের প্রথম সন্ত্রাসবাদী একজন হিন্দু৷’ কমল হাসানের মন্তব্যে তৈরি হয় বিতর্ক৷ প্রতিবাদে সরব হয় গেরুয়া শিবির৷ হিন্দু ভাবাবেগে আঘাত করেছেন এই অভিযোগ ওঠে তাঁর বিরুদ্ধে৷ দিল্লির পাতিয়ালা হাউস কোর্টে মাক্কাল নিধি মইয়াম দলের নেতার বিরুদ্ধে ফৌজদারি ধারায় অভিযোগ দায়ের করা হয়।