স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: চলতি সপ্তাহ থেকেই ভক্তদের জন্য খুলছে কালীঘাট মন্দিরের দরজা। সুরক্ষা বজায় রাখতে মন্দির চত্বরে বসছে স্যানিটাইজিং টানেল। ১ জুন থেকে রাজ্যে মন্দির, মসজিদ, গির্জা, গুরুদ্বার-সহ ধর্মীয় উপাসনালয় খোলার অনুমতি দিয়েছে রাজ্য সরকার। বলা হয়েছে, স্বাস্থ্য বিধি মেনে ১০জনকে ভিতরে প্রবেশ করতে দেওয়া যাবে।

নবান্নে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‘মন্দির-মসজিদ খুললেও কোনও জমায়েত করা যাবে না। ভিতরে এক বারে ১০ জনের বেশি ঢোকা যাবে না। এর অন্যথা হলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ধর্মীয় স্থানে কোনও জমায়েত বা অনুষ্ঠান করা যাবে না।

পাশাপাশি প্রবেশ পথে ধর্মস্থানগুলির কর্তৃপক্ষকেই স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা করতে হবে।’’ যদিও রাজ্যের ছাড়ের পরও বেলুড় মঠ, কালীঘাট, দক্ষিণেশ্বর, তারাপীঠের মতো বড় মন্দিরগুলোর দরজা ভক্তদের জন্য খোলা হয়নি। তবে এই সপ্তাহেই যাতে মন্দির খোলা যায় তার সবরকম প্রস্তুতি নিচ্ছে কালীঘাট মন্দির কর্তৃপক্ষ।

রাজ্যসভার তৃণমূল সাংসদ তথা কালীঘাট মন্দির কমিটির সভাপতি শুভাশিস চক্রবর্তী বলেছেন, বিধি মেনে মন্দির খোলার সমস্ত ব্যবস্থা করা হচ্ছে। তিনি জানিয়েছেন, গোটা মন্দির স্যানিটাইজ করার কাজ শুরু হয়েছে। তা ছাড়া একটি স্যানিটাইজ টানেলের ব্যবস্থা করা হবে। তার মধ্যে দিয়েই ভক্তরা মন্দিরে প্রবেশ করবেন।

করোনা সংক্রমণ এড়াতে লকডাউন শুরুর আগে থেকেই কালীঘাট মন্দিরের দরজা বন্ধ হয়ে যায়। টানা মন্দির বন্ধ থাকায় মন্দির সংলগ্ন মিষ্টি ও ডালার দোকানগুলির মালিকদের কার্যত মাথায় হাত পড়েছ। মন্দির খোলার খবরে খুশি হয়েছেন তাঁরা।

প্রশ্ন অনেক: দ্বিতীয় পর্ব