নয়াদিল্লি: ভারতীয়দের হৃদয়জুড়ে রয়েছে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি এপিজে আবদুল কালাম৷ তিনিই ১৩০ কোটি দেশের প্রকৃত রাষ্ট্র নায়ক৷ তাই প্রাক্তন রাষ্ট্রপতির জন্মদিনই পালিত হোক জাতীয় পড়ুয়া দিবস হিসাবে৷

রবিবার এই দাবি তুলেছেন বিজেপি নেতা ও প্রাক্তন রাজ্যসভার সাংসদ আনন্দ ভাস্কর রাপালু৷ ইতিমধ্যেই তাঁর দাবি চিঠির মাধ্যমে পৌঁছে দিয়েছেন কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়নমন্ত্রী রমেশ পোখরিয়াল নিশাঙ্কের কাছে৷

আরও পড়ুন: সরকারি প্রকল্পের বিরোধিতা করে অধিকৃত কাশ্মীরে গ্রেফতার ৬০

১৯৩১ সালের ১৫ই অক্টোবর তামিলনাড়ুর রামেশ্বরমে জন্ম হয়েছিল কালামের৷ সেখান থেকেই তাঁর বেড়ে ওঠা৷ ভারতের পরমাণু ক্ষেত্রের উন্নয়নে তাঁর ভূমিকা অনস্বীকার্য৷ জাতির অনুপ্রেরণা এপিজে আবদুল কালাম৷ অটল বিহারী বাজপেয়ীর সরকারের আমলেই কলাম রাষ্ট্রপতি হিসাবে নির্বাচিত হন৷

বিজেপি নেতা আনন্দ ভাস্কর রাপালুর চিঠিতে উল্লেখ, প্রয়াত প্রাক্তান রাষ্ট্রপতি এপিজে আবদুল কালামের জন্মদিনকে ইতিমধ্যেই স্বীকৃতি দিয়েছে জাতীসংঙ্ঘ৷ ১৫ই অক্টোবর পড়ুয়া দিবস বলে ঘোষণা করা হয়েছে৷ সমগ্র বিশ্বজুড়ে তা পালিত হয়৷ আমাদের দেশেও নানা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কালামের জন্মদিনটি পালন করা হয়ে থাকে একেবারেই নিজস্ব উদ্যোগে৷

আরও পড়ুন: সৌরভকে চাই ভারতীয় দলে, বাল ঠাকরের মুম্বইকে চমকে দিয়েছিলেন বাঙালিবাবু

শাসক দলের প্রাক্তন সাংসদের আর্জি, বিশ্ব যোগা দিবস বা হ্যান্ডলুম ডে পালনে বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ তারপর থেকেই ২১ জুন বা ৭ আগষ্ট দিন দুটি জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে৷ প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় সরকার উদ্যোগী হলে দেশের মহান সন্তানের জন্মদিনটিও আমাদের দেশে সাড়ম্বরে পালন করা যায়৷ ওই দিনই দেশজুড়ে পালন করা হোক জাতীয় পড়ুয়া দিবস হিসাবে৷ এর মাধ্যমেই ‘মিসাইল ম্যানে’র স্বপ্ন বাস্তবায়িত করা সম্ভব বলে মনে করেন আনন্দ ভাস্কর রাপালু৷

কেন্দ্র এখন কী উদ্যোগ গ্রহণ করে প্রাক্ত সাংসদের চিঠির প্রেক্ষিতে সেদিকেই তাকিয়ে গোটা দেশ৷