বর্ধমান: দিলীপ ঘোষকে বেনজির আক্রমণ খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের। দিলীপ ঘোষকে জোকার বলে কটাক্ষ উত্তর ২৪ পরগনা জেলা তৃণমূল সভাপতির। বিজেপি বাংলা দখলের দিবাস্বপ্ন দেখছে বলেও কটাক্ষ করেছেন জ্য়োতিপ্রিয় মল্লিক।

আবারও জ্য়োতিপ্রিয় মল্লিকের নিশানায় বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বৃহস্পতিবারই দ্বিতীয়বার বিজেপির রাজ্য সভাপতির দায়িত্ব পেয়েছেন দিলীপ ঘোষ। এবার একটানা ৩ বছরের জন্য বাংলায় দলের ভার তাঁর কাঁধে দিয়েছে শীর্ষ নেতৃত্ব। আর ওই দিনই বর্ধমানে দিলীপ ঘোষকে বেনজির আক্রমণ করলেন তৃণমূল নেতা জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক।

দিলীপকে নিশানা করে জ্যোতিপ্রিয় বলেন, ‘দিলীপ ঘোষ একজন জোকার। তাঁকে দেখে বাচ্চা থেকে বুড়ো সবাই হাসছে। কাকে কি বলতে হয় দিলীপ ঘোষ জানেন না। দিনে স্বপ্ন দেখছে রাজ্যে ক্ষমতায় আসবে বলে। কিন্তু ৫০ বছরেও সেই স্বপ্ন সত্যি হবে না।’ বর্ধমানে প্রশাসনিক বৈঠক করতে এসে বিশ্বভারতীতে ছাত্রদের উপর হামলার ঘটনা নিয়েও মুখ খোলেন জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। এবিভিপি-র বিরুদ্ধেই হামলার অভিযোগ জ্যোতিপ্রিয়র। তিনি বলেন, ‘ওদের সংস্কৃতিই এটা। কাকে কীভাবে সম্মান দিতে হয়, নারী-পুরুষকে কি চোখে দেখতে হয় ওরা কিছুই জানে না।’

এর আগেও তৃণমূলের একাধিক নেতার আক্রমণের শিকার হন দিলীপ ঘোষ। পালটা আক্রমণ করতে গিয়ে মাঝে-মধ্যেই দিলীপ কথায় বিতর্ক তৈরি হয়। যার জেরে দলের অন্দরেও সমালোচিত হয়েছেন দিলীপ ঘোষ। সম্প্রতি নদিয়ার একটি জনসভায় রাজ্যে নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসি নিয়ে আন্দোলনকারীদের একাংশকে নিশানা করে দিলীপ বলেন, ‘যারা সম্পত্তি নষ্ট করছে তাদের উত্তরপ্রদেশের মতো গুলি করে মারা উচিত।’

মেদিনীপুরের সাংসদের এই মন্তব্যের পরই সমালোচনার ঝড় ওঠে রাজনৈতিক মহলে। কড়া সমালোচনা করেন বিজেপি সাংসদ বাবলু সুপ্রিয়৷ টুইট করে বাবুল লেখেন,‘দায়িত্বজ্ঞানহীন মন্তব্য করেছেন দিলীপদা। দিলীপ ঘোষ যা বলেছেন, তার সঙ্গে বিজেপির কোনও সম্পর্ক নেই। তিনি যা বলেছেন, সবটাই তাঁর মস্তিষ্কপ্রসূত।’

বাবুলের মন্তব্যের পরই পালটা প্রতিক্রিয়া দেন দিলীপ ঘোষ। দিলীপ বলেন, ‘পার্টি লাইন কে ঠিক করেন? অমিত শাহ নাকি বাবুল সুপ্রিয়। বাবুলের কথা শুনে মনে হচ্ছে তিনিই পার্টি লাইন ঠিক করে দেবেন। আমি পার্টির লাইন মেনেই এই কথা বলেছি।’

দিলীপের কথায় যে সত্য়িই দলের শীর্ষ নেতৃত্বেরও সায় থাকে তা আরও একবার স্পষ্ট হয়েছে দ্বিতীয়বারের জন্য এবার একটানা ৩ বছর এরাজ্যে তাঁকে দলের দায়িত্ব দেওয়ায়।