প্রতীতি ঘোষ, বারাকপুর: ভোটের আবহে তৃণমূল কংগ্রেস বনাম অর্জুন সিংয়ের দ্বৈরথে সরগরম হয়ে উঠল ভাটপাড়ার রাজনীতি। রবিবার তৃণমূলের জেলা সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক জানালেন ভোট শেষ হলেই দুর্নীতি তদন্তে কমিশন বসবে অর্জুন সিংয়ের বিরুদ্ধে৷ পাল্টা অর্জুনও বোঝালেন এসব জুজুকে তিনি পাত্তা দিচ্ছেন না৷

এদিন ভাটপাড়ার কাছারি রোডে ছিল তৃণমূলের কর্মীসভা। সেখানে তৃণমূলের জেলা সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেন, দিনের পর দিন ভাটপাড়া পুরসভা লুঠ করেছেন অর্জুন সিং। মানুষকে ভোট দিতে দেননি। ভাটপাড়ায় গুন্ডারাজ শেষ করবে তৃণমূল। অর্জুন সিংয়ের দুর্নীতির তদন্তে কমিশন বসানো হবে৷ জ্যোতিপ্রিয়র আশ্বাস, লোকসভা নির্বাচনের পর ভাটপাড়া পুরসভায় নবনির্বাচিত তৃণমূল বোর্ডসমস্ত ঠিকাদার ও ঠিকা কর্মীদের বকেয়া মেটাবে পুরসভা।

ওই সভায় উপস্থিত ছিলেন দীনেশ ত্রিবেদীও৷ তিনি বলেন, ২০০৯ সালে দল আমাকে বারাকপুরে লড়াই করতে পাঠিয়ে ছিল গুন্ডা তরিৎ তোপদারের বিরুদ্ধে।২০১৯ এ আমার লড়াই গুন্ডা অর্জুন সিং-এর বিরুদ্ধে। আমাকে গত পাঁচ বছর ধরে অর্জুন ভাটপাড়া এলাকায় কোনও সভা করতে দেয়নি। অর্জুন চলে যাওয়াতে ভাটপাড়া স্বাধীন হয়েছে।

আরও পড়ুন- তৃণমূল-কমরেড যুগলবন্দির নাটকে খুশি হয়েছিলেন ‘মোগ্যাম্বো’ জ্যোতিবাবু

এদিন মঞ্চে হাজির করা হয় তৃণমূলের ১৯ জন কাউন্সিলরকে। এর পরই একযোগে অর্জুন সিংকে ‘গদ্দার’ বলে হামলা শুরু করেন তৃণমূলের নেতারা। তৃণমূলের তরফে দাবি করা হয়, ৩৫ আসনের ভাটপাড়া পুরসভা যে তৃণমূলেরই দখলে ১৯ কাউন্সিলরের উপস্থিতি তা প্রমাণ করল। কাউন্সিলরাও প্রকাশ্যে জানালেন তাঁরা তৃণমূলেই রয়েছেন।

এদিকে, এদিন কাঁকিনাড়া এলাকায় বিজেপির দলীয় নেতা কর্মীদের সঙ্গে বৈঠক করে আগামী দিনের প্রচার কর্মসূচি ঠিক করেন অর্জুন সিং৷ তৃণমূলের হুঁশিয়ারিকে উড়িয়ে তিনি বলেন, এখানে আগামী দিনে তৃণমূল বলে কিছু থাকবে না৷ সব জায়গায় শুধু থাকবে বিজেপি৷