স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: হালিশহর,কাঁচরাপাড়া, বনগাঁ, নৈহাটি পুনর্দখলের পর এ বার তৃণমূলের টার্গেট ভাটপাড়া৷ নভেম্বরের মধ্যেই অর্জুন সিংয়ের গড় দখল করা হবে বলে বৃহস্পতিবার ইঙ্গিত দিয়েছেন উত্তর ২৪ পরগনার জেলা তৃণমূল সভাপতি তথা রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয়৷

লোকসভা নির্বাচনে বঙ্গে বিজেপির উত্থানের পর একদা মমতা সেনাপতি মুকুল রায়ের হাত ধরে নৈহাটি, হালিশহর, কাঁচরাপাড়া, ভাটপাড়ার মতো একের পর এক পুরসভা ‘দখল’ করে গেরুয়াশিবির। এরপরই নিজেদের দুর্গ বাঁচাতে উঠেপড়ে লাগে মমতা ব্রিগেড। মুকুল রায়কে রীতিমতো টেক্কা দিয়ে কাঁচরাপাড়া, বনগাঁ, হালিশহর, নৈহাটির মতো পুরসভা ‘পুনরুদ্ধার’ করে মমতা বাহিনী। বুধবারই আস্থা ভোটে জিতে নৈহাটি পুরসভা নিজেদের দখলে এনেছে তৃণমূল।

এদিন জ্যোতিপ্রিয় বলেন, “৩৪ জন কাউন্সিলরের মধ্যে ইতিমধ্যেই ভাটপাড়া পুরসভার ২১ জন কাউন্সিলর অনাস্থা আনতে চেয়ে এককাট্টা হয়েছেন। কাজেই বোর্ড পুনর্দখল করা এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা।”

আরও পড়ুন – আমার ভাটপাড়া পুরবোর্ড বিজেপির হাতছাড়া হবে না: অর্জুন সিং

উল্লেখ্য, ৩৫ আসনের ভাটপাড়া পুরসভায় একজন কাউন্সিলরের মৃত্যু হয়েছিল আগেই। ভাটপাড়ার প্রাক্তন পুরপ্রধান অর্জুন সিং তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যাওয়ার পরেই ১১ জন কাউন্সিলর তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন। পরবর্তীতে আরও আট কাউন্সিলর বিজেপিতে যোগ দেওয়ায় সংখ্যাগরিষ্ঠতার বিচারে এগিয়ে যায় বিজেপি। তারপরেই শুরু হয় টানাপড়েন।

গত ৪ জুন সকালে নতুন পুরপ্রধান নির্বাচনে বিজেপির মোট ২৬ জন কাউন্সিলরের ভোটে জয়ী হন অর্জুন সিংয়ের ভাইপো সৌরভ সিং। অর্থাৎ আরও সাতজন কাউন্সিলরের সমর্থন পান সৌরভ। ম্যাজিক সংখ্যার থেকে অনেক বেশি আসন নিয়ে ভাটপাড়া পুরসভা আনুষ্ঠানিক ভাবে দখল করে নেয় বিজেপি।ভাটপাড়া পুরসভা পুনর্দখলের ইঙ্গিত দিয়ে জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেন, “সব কিছু যে ভাবে চলছে তাতে নভেম্বরের মধ্যেই এই পুরবোর্ড তাদের দখলে আসবে।