তুরিন: শেষ তিন ম্যাচে জয় নেই। খেতাব জয় ক্রমশ কঠিন করে তুলছে জুভেন্তাস। মিলানের বিরুদ্ধে দু’গোলে এগিয়ে থেকে হার। আটলান্টার বিরুদ্ধে ড্র’য়ের পর এবার সাসুয়োলোর বিরুদ্ধে ড্র করে বসল জুভেন্তাস। অ্যাওয়ে ম্যাচে বুধবার দু’গোলে এগিয়ে গিয়েও থ্রিলার ম্যাচে ৩-৩ গোলে ড্র করল মৌরিজিও সারির ছেলেরা।

৩৩ ম্যাচে ৭৭ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয়স্থানে থাকা আটলান্টার চেয়ে সাত পয়েন্ট এগিয়ে রয়েছে জুভেন্তাস। কিন্তু এভাবে পয়েন্ট খোয়াতে থাকলে খেতাব জয় যে চ্যালেঞ্জিং হয়ে দাঁড়াবে, সে বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই। এদিন ম্যাচ শুরুর মাত্র পাঁচ মিনিটের মধ্যে জুভেন্তাসকে এগিয়ে দেন দানিলো। পিয়ানিচের মাটি ঘেঁষা কর্ণার ফলো-থ্রু করে বক্সের বাইরে থেকে দুরন্ত শটে বল জালে রাখেন তিনি। সাত মিনিট বাদে ব্যবধান ২-০ করেন গঞ্জালো হিগুয়েন।

তবে গোলটির পিছনে অবদান সেই পিয়ানিচের। মাঝমাঠ থেকে তাঁর লম্বা থ্রু বল ধরে বিপক্ষ গোলরক্ষকের অবস্থান বুঝে নিয়ে ঠান্ডা মাথায় বল তেকাঠিতে জড়ান আর্জেন্তাইন ফরোয়ার্ড। জুভেন্তাসের দ্বিতীয় গোলের পরেই জুভেন্তাস রক্ষণে আক্রমণের ঝাঁঝ বাড়িয়ে তোলে সাসুয়োলো। দু’টি ক্ষেত্রে দুর্গের শেষ প্রহরী সেজনি ঢাল না হয়ে দাঁড়ালে ম্যাচে আগেই সমতা ফিরিয়ে আনতে পারত হোম টিম। তবে গোলের ব্যবধান কমানোর জন্য দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি সাসুয়োলোকে। ২৯ মিনিটে তাঁদের প্রথম গোলটি তাঁদের দুরন্ত টিমগেমের ফসল।

প্রথমার্ধে ফিলিপ ডুরিচিচের গোলের পর ৫১ মিনিটে চোখধাঁধানো ফ্রি-কিকে বল জালে জড়িয়ে দেন ডমেনিকো বেরার্দি। সেজনিকে এক্ষেত্রে নড়ার সুযোগ দেওনি তিনি। দু’গোলে পিছিয়ে থাকা সাসুয়োলো ঠিক তিন মিনিট বাদেই প্রথমবারের জন্য লিড নেয় ম্যাচে। বেরার্দির পাস থেকে ফাঁকা গোলে বল ঠেলে দেন ফ্রান্সেসকো কাপুতো। ফের ম্যাচ হারের ভ্রুকুটি গ্রাস করে তুরিনের ক্লাবটিকে। কিন্তু ৬৪ মিনিটে সারির দলে ত্রাতা হিসেবে দেখা দেন অ্যালেক্স স্যান্দ্রো।

বেন্তাঙ্কুরের কর্ণার থেকে সুযোগ-সন্ধানী হেডারে বল জালে রাখেন ব্রাজিলিয়ান। এরপর আর গোল হয়নি ম্যাচে। থ্রিলার ম্যাচ ৩-৩ গোলে অমিমাংসিত অবস্থাতেই শেষ হয়।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ