ছবি

দু’দিন বাদেই দিওয়ালি। আলোর রোশনাইতে সেজে উঠবে কাশ্মীর থেকে কন্যাকুমারী। ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে শুভেচ্ছা বিনিময়। আর এই উৎসবের মরশুমে সুদূর কানাডা থেকে শুভেচ্ছাবার্তা পাঠালেন সেখানর প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডু। সুন্দর চেহারা ও ব্যবহারে দেশের বাইরেও বেশ জনপ্রিয় এই কানাডিয়ান প্রধানমন্ত্রী। তবে দিওয়ালির শুভেচ্ছা জানিয়ে ভারতীয়দের রোষের মুখে পড়তে হল তাঁকেও। কারণ শুভেচ্ছা জানাতে গিয়ে তিনি বলেছেন, ‘দিওয়ালি মোবারক’।

আরবি শব্দে কেন শুভেচ্ছা জানানো হল ভারতের এই উৎসবে। সেটাতেই খেপেছেন নেটিজেনরা। ট্যুইটার জুড়ে তাঁকে শেখানো হয়েছে যে দিওয়ালির শুভেচ্ছা জানাতে গেলে ‘মোবারক’ কথাটা বলা যায় না। কেউ বলেছেন, ‘জাস্টিন আবার কবে মুসলিমে ধর্মান্তরিত হলেন?’, কেউ আবার বলেছেন, উনি পাকিস্তানের কাছ থেকে এসব শিখছেন।

এবারই প্রথম নয়, এর আগেও ভারতের উৎসবে সোশ্যাল মিডিয়ায় শুভেচ্ছা জানিয়েছেন জাস্টিন ট্রুডু।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।