জলপাইগুড়ি: ব‍্যাগ ভর্তি করে ডজনখানেক মরা মুরগি নিয়ে আচমকাই থানায় এসে হাজির এক মহিলা। তাঁর অভিযোগ, বিষ খাইয়ে মেরে ফেলা হয়েছে তাঁর বাড়ির পোষা মুরগিগুলোকে। স্বাভাবিকভাবেই এই দৃশ্য দেখে চমকে গেলেন পুলিশকর্মীরা।

মুরগীগুলির এইভাবে মৃত্যু মেনে নিতে পারেনি ওই মহিলা ও তাঁর পরিবার। ঘটনার বিচার চেয়ে থানায় এসে কান্নায় ভেঙে পড়ে‌ন ওই মহিলা। প্রতিবেশী‌র লঙ্কাক্ষেতে ঢুকে যাওয়ার শাস্তি দিতে গিয়ে মুরগিগুলোকে বিষ খাই মেরে ফেলা হয়েছে বলে তাঁর অভিযোগ।

ঘটনার প্রতিবাদ করতে গেলে প্রতিবেশী ফুলবর হক ওই মহিলাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে বলেও অভিযোগ করেছেন তিনি। এমনকি তাঁকে প্রকাশ‍্যে ধর্ষণ করার হুমকিও দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। এইসব অভিযোগ জানিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন মনসুরা বেগম নামে ওই মহিলা।

জলপাইগুড়ি সদর ব্লকের ধাপগঞ্জ সংলগ্ন ব্রক্ষ্মোতলপাড়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটেছে। বিষয়টি নিয়ে জলপাইগুড়ি কোতোয়ালি থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন মনসুরা বেগম ও তাঁর স্বামী আমিনুল ইসলাম। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে জলপাইগুড়ি কোতোয়ালি থানার পুলিশ।

আইন অনুযায়ী, গৃহপালিত কোনও প্রাণীর দাম ৫০ টাকা বা তার বেশি হলে, সেই প্রাণীকে কোনও ভাবে হত্যা করা হলে, বিষপ্রয়োগ করা হলে বা অন্য কোনও ভাবে ক্ষতি করা হলে এ জন্য জেল, জরিমানা বা দুটোই হতে পারে।

কোনও প্রাণীর ময়নাতদন্ত করাতে গেলে থানায় অভিযোগ জানানো বাধ্যতামূলক। পুলিশ মামলা গ্রহণ করলে তবেই তা সম্ভব। অনেক ক্ষেত্রেই অভিযোগ ওঠে যে থানা অভিযোগ নিতে অস্বীকার করছে, কিন্তু এক্ষেত্রে তেমন হয়নি। ওই দম্পতির অভিযোগ গুরুত্ব দিয়েই গ্রহণ করেছে পুলিশ।