সেই ‘তিন ইয়ারি কথা’র থেকে টেলিভিশনের পর্দায় ‘দিদি নং ওয়ান’, পর্দায় তিনি বরাবরই মাত করেছেন৷ ছোটপর্দা থেকে বড়পর্দায় তাঁর অবাধ বিচরণ৷ তিনি জুন মালিয়া৷ আজ তাঁর জন্মদিনে দেখে নওয়া যাক বাংলার এই দক্ষ অভিনেত্রীর কিছু মনে রাখা অভিনয়৷

 ১.  এবার শবর

এবার শবরের জুলেখা৷ কিংবা রীতা৷ এ ছবিতে তাঁর অভিনয় প্রায় দ্বৈত চরিত্রে৷  একজন ঘরোয়া গৃহবধূ থেকে বার-রেস্তরাঁয় পুরুষ মজানো গৃহবধূ, দুই চরিত্রেই মাত করেছিলেন তিনি৷ মূলত তাঁর চরিত্রের উপরই লুকিয়ে ছিল ছবির কাহিনির রহস্যের চাবি৷ অসাধারণ অভিনয় দক্ষতার পরিচয় দিয়েছিলেন তিনি এ ছবিতে৷

June-as-Julekha

২. তিন ইয়ারি কথা

ছবিতে ছোট্ট একটি ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন৷ দীর্ঘদিন ধরে নানা জটিলতায় ছবিটি মুক্তিও পায়নি৷ কিন্তু বাংলা ছবিতে তরুণ অবিবাহিত যুবকদের কথা উঠে এসেছিল এ ছবিতে৷ বাঙালি তরুণদের এক প্রজন্মের কাছে বউদি বলতে ভেসে ওঠে তাঁর ছবিই৷

Teen-Yaari-Kotha

৩. বং কানেকশন

এ ছবিতে নিজেকে অনেকটা ভেঙেছিলেন জুন৷ ছবিতে তাঁর চরিত্রটি ছিল এক অত্যাচারিত গৃহবধূর৷ প্রতিরাতে স্বামীর কামনা বাসনা ও অত্যাচারের শিকার হয় যে৷ ছোট্ হলেও এ ভূমিকাতেও নিজের অভিনয়ক্ষমতা চিনিয়ে দিয়েছিলেন তিনি৷

 

 ৪. নীল নির্জনে

এ ছবি ছিল একবারে নাগরিক মননের৷ নাগরিক জীবনের চাওয়া-পাওয়া-হতাশা সব মিলিয়েই মনসত্ত্বের গহনে ডুব দিয়েছিলেন পরিচালক৷ ছবিতে জয়ার চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন তিনি৷ সাহসী কিছু দৃশ্যেও এ ছবিতে পাওয়া গিয়েছিল তাঁকে৷

https://www.youtube.com/watch?v=T0rtj9JTM5A

এছাড়াও ‘অভিশপ্ত নাইটি’, ‘বাইশে শ্রাবণ’, ‘পদক্ষেপ’, ‘শিকার’ প্রভৃতি নানা ছবিতে দেখা নানা ভূমিকায় দেখা গিয়েছে তাঁকে৷অভিনয়ের পাশাপাশি তিনি একজন সমাজসেবীও৷ রাজ্য মহিলা কমিশনের সদস্যও৷

জন্মদিনে বাংলার এই দক্ষ অভিনেত্রীকে অনেক শুভেচ্ছা৷

 

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।