মাদ্রিদ: রিয়াল মাদ্রিদে জিদানের জুতোয় পা গলানোর স্বপ্ন দেখেছিলেন৷ যার বড়সড় মাশুলও দিতে হয়েছিল জুলেন লোপেতেগুইকে৷ জাতীয় কর্তব্য জলাঞ্জলি দিয়ে শেষমেশ রিয়াল কোচের চেয়ারে বসলেও হটসিট একটু বেশিই হট ছিল লোপেতেগুইয়ের পক্ষে৷ ফলে খুব বেশিদিন লা লিগার স্পটলাইটে থাকা হয়নি তাঁর৷ চাকরি খোয়াতে হয়েছিল অচিরেই৷ অবশেষে ৫২ বছর বয়সি জুলেন ফিরলেন ম্যানেজারের চেয়ারে৷ নতুন মরশুমে লা লিগা দল সেভিয়ার কোচ হিসাবে দেখা যাবে স্পেনের জাতীয় দল ও রিয়াল মাদ্রিদের প্রাক্তন কোচকে৷

রাশিয়া বিশ্বকাপের শেষ পর্যন্ত স্প্যানিশ ফুটবল সংস্থার সঙ্গে চুক্তি ছিল লোপেতেগুইয়ের৷ বিশ্বকাপের পর স্পেনের ফুটবল কর্তাদের সঙ্গে নতুন চুক্তি নিয়ে আলোচনায় বসার কথা ছিল তাঁর৷ তবে সেই পর্যন্ত অপেক্ষা করতে রাজি ছিলেন না লোপেতেগুই৷ জিদান রিয়ালের দায়িত্ব ছাড়ার পরেই রিয়াল কর্তাদের সঙ্গে কথাবার্তা শুরু করেন তিনি৷ স্পেনের কোচ থাকাকালীনই মাদ্রিদের কোচ হিসাবে চুক্তিবদ্ধ হন জুলেন৷

বিষয়টি ভালো চোঠে দেখেনি স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশন৷ চুক্তির শর্ত ভঙ্গের দায়ে বিশ্বকাপ শুরুর ঠিক আগেই স্পেনের কোচের পদ থেকে ছেঁটে ফেলা হয় লোপেতেগুইকে৷ রাশিয়ার শিবির থেকে দেশে ফিরেই রিয়ালের দায়িত্ব বুঝে নেন তিনি৷ তবে কোচ হিসাবে রিয়ালকে প্রাথমিক সাফল্য দিতে না পারায় তিন মাসের মধ্যেই তাকে চাকরি খোয়াতে হয়৷

মরশুমের মাঝপথে কোনও ক্লাবই লোপেতেগুইকে নিয়ে অগ্রহ দেখায়নি৷ মরশুম শেষ হওয়ার পর সেভিয়া আগামী তিন বছরের জন্য চুক্তি সেরে নেয় তাঁর সঙ্গে৷ লোপেতেগুই সেভিয়ায় জোয়াকিন কাপারোসের স্থলাভিষিক্ত হবেন৷ জোয়াকিন গত মার্চ মাস থেকে অন্তর্বর্তীকালীন কোচ হিসাবে সেভিয়ার দায়িত্ব পালণ করছিলেন৷ উনাই এমেরি ক্লাব ছাড়ার পরে গত তিন বছরে সেভিয়া এই নিয়ে ছ’জন কোচ বদল করল৷

লোপেতেগুই ২০১৬ ইউরোর পর স্পেনের জাতীয় দলের দায়িত্ব গ্রহণ করেন৷ তাঁর কোচিংয়েই স্পেন টানা ২০ ম্যাচ অপরাজিত ছিল৷ তবে রিয়ালের হয়ে তাঁর কোচিং অভিজ্ঞতা মোটের সুখকর নয়৷ লা লিগার ১০টি ম্যাচে লোপেতেগুইয়ের কোচিংয়ে রিয়াল জেতে ৪টি ম্যাচে৷ ড্র করে ২টি ম্যাচ৷ পরাজিত হয় ৪টি ম্যাচে৷

স্পেনের সিনিয়র দলের দায়িত্ব সামলানোর আগে লোপেতেগুই স্পেনের বিভিন্ন বয়সভিত্তিক দলকে কোচিং করিয়েছেন৷ এছাড়াও রায়ো ভালোকানো, রিয়াল মাদ্রিদ-বি এবং পোর্তোর কোচ হিসাবেও কাজ করেছেন তিনি৷ এখন দেখার যে, সেভিয়ার কোচ হিসাবে কতটা সাফল্য পান তিনি৷ সেভিয়া এবার লা লিগায় ছ’নম্বরে থেকে লড়াই শেষ করে৷ ফলে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ খেলার সুযোগ হাতছাড়া হলেও আগামী মরশুমে ইউরোপা লিগে দেখা যাবে তাঁদের৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.