ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: মন্ত্রী হিসেবে নয়, নবীন বরণ অনুষ্ঠানে একজন গায়ক হিসাবে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়েছিলেন বাবুল সুপ্রিয়। তাঁকে, মারধর করেছে বামপন্থি ছাত্ররা। যাদবপুর বিশ্ব বিদ্যালয় গুন্ডাদের আখড়া। মন্তব্য করেছেন বিজেপির জাতীয় সম্পাদক রাহুল সিনহা।

বৃহস্পতিবার, যাদবপুর বিশ্ব বিদ্যালয়ে “স্বাধীনতা পরবর্তী ভারতবর্ষের শাসন ব্যবস্থা” শীর্ষক আলোচনা চক্রে ‘সংগীত শিল্পী’ হিসেবে আমন্ত্রণ জানানো হয় বাবুলকে। এই নবীনবরণ অনুষ্ঠানের আয়োজক ছিল অখিল ভারতীয় বিদ্ধার্থী পরিষদ। তবে তাঁদের এই অনুষ্ঠান হতে না দেওয়ার জন্য সকল থেকেই ব্যাপক প্রচার শুরু করে এসএফআই এবং অন্যান্য বাম ছাত্র সংগঠন। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ক্যাম্পাসে আশার পর ঝামেলা আরও বাড়ে।

পরিস্থিতি এমন ঘোরালো হয়ে দেখা দেয় যে, বাবুলের নিরাপত্তারক্ষীরাও তাঁকে বিশ্ববিদ্যালয় চত্বর থেকে বাইরে সরিয়ে নিয়ে যেতে পারেননি।

উপাচার্যের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয় বাবুলের। বাবুল তাঁকে বলেন পুলিশ ডাকতে। উপাচার্য রাজি হননি। উপাচার্য সুরঞ্জন দাস কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে বলেন তিনি দরকার হলে পদত্যাগ করবেন। পরিস্থিতি সামলাতে হাজির হন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখরও। তাকেও ঘেরাও করে রাখে বামপন্থি ছাত্ররা। পরে তিনিই বানুল।কে নিয়ে বেরিয়ে যান।

উল্লেখ্যযোগ্য, এসএফআই নেতৃত্ব ঘটনাটির নিন্দা করেছে। এসএফআই জানিয়েছে, যারা ঘটনাটি ঘটিয়েছে, তাঁরা গণতন্ত্র বিনষ্ট কারীদের হাত শক্ত করলেন। সূত্রের যা।খবর, যাদবপুরে কিছু নকশাল ছাত্র সংগঠন মন্ত্রীকে মারধর করেছে।