নয়াদিল্লি: করোনাকালেই বিহার ভোট। বিহারে ৩ দফায় ভোটগ্রহণ পর্ব চলবে। ভোটের ফল ঘোষণা করা হবে আগামী ১০ নভেম্বর। আগামী ২৮ অক্টোবর থেকে বিহারে ভোটগ্রহণ পর্ব শুরু। তার আগে বুধবার দিল্লিতে দলীয় কার্যালয়ে বিহারের বিজেপি নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠকে সর্বভারতীয় বিজেপি সভাপতি জেপি নাড্ডা। বিহার ভোটের আসন বণ্টন-সহ একাধিক বিষয়ে আলোচনা বৈঠকে।

বিহারে জেডিইউ ও এলজেপির সঙ্গে জোট রয়েছে বিজেপির। সর্বশেষ এনডিএ জোটে নাম লিখিয়েছে জিতেনরাম মাঝির দলও। তবে বিহারে এখনও পাকাপাকিভাবে আসন সমঝোতা হয়নি। নীতিশকুমারের নেতৃত্বেই বিধানসভা ভোট লড়ার ঘোষণা করেছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা।

বিহারে জেডিইউ-এর সঙ্গে আসন বণ্টন নিয়ে আলোচনা করতে এখনও বসেনি বিজেপি। জেপি নাড্ডা রাজ্য নেতৃত্বকে ডেকে পাঠান দিল্লিতে। সাম্প্রতিক পরিস্থিতির বিচারে জোটধর্ম পালন করে ক’টি আসনে লড়াই করা যায় তা নিয়ে দলের নেতাদের সঙ্গে আলোচনায় নাড্ডা।

বিহারে এবারেও পাল্লা ভারী এনডিএ-র। একাধিক নির্বাচনী সমীক্ষায় জেডিইউ-বিজেপি জোটের সরকারই ফের বিহারের ক্ষমতা দখল করছে বলে ইঙ্গিত মিলেছে। যা ভোটের আগে শাসকশিবিরকে বাড়তি অক্সিজেন জুগিয়েছে। করোনা পরিস্থিতির মধ্যেই আগামী মাসের শেষ সপ্তাহ থেকে বিহারে বিধানসভা ভোট শুরু হয়ে যাচ্ছে।

এবার বিহারে ৩ দফায় বিধানসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে চলেছে। আগামী ২৮ অক্টোবর প্রথম দফার ভোটগ্রহণ। প্রথম দফায় বিহারের ৭১টি আসনে নির্বাচন হবে। এরপর ৩ নভেম্বর দ্বিতীয় দফায় ৯৪টি আসনে নির্বাচন হবে। তৃতীয় ও শেষ দফায় ৭৮টি আসনে ভোটগ্রহণ হবে। আগামী ১০ নভেম্বর বিহারে বিধানসভা ভোটের ফল ঘোষণা করা হবে।

বিহারের মোট ২৪৩টি আসনে ভোটগ্রহণ হবে। আগামী ২৯ নভেম্বর শেষ হচ্ছে বিহারের বর্তমান সরকারের মেয়াদ। করোনা আবহে কীভাবে ভোট পরিচালনা করা যাবে তা নিয়ে গত কয়েকমাস ধরে দফায়-দফায় আলোচনা চালিয়েছেন নির্বাচনী আধিকারিকেরা।

বিহার প্রশাসনের সঙ্গেও একাধিকবার আলোচনা সেরেছেন নির্বাচনী আধিকারিকরা। ভোট পর্বে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া রুখতে কী কী পদক্ষেপ করা যায় তা নিয়ে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শও নিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।