কলকাতা: ‘অতল, তোমার সাক্ষাৎ পেয়ে চিনতে পারিনি বলে/ হৃদি ভেসে গেল অলকানন্দা জলে’ লিখেছিলেন তিনি। তিনি আর কেউ নন, কিংবদন্তি কবি জয় গোস্বামী। এই মুহূর্তে তিনি পশ্চিমবঙ্গ বাংলা আকাদেমির সম্মানীয় সদস্য এবং নজরুল আকাদেমির সভাপতি। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে তাঁর সুসম্পর্কের কথা সকলেরই জানা। তাঁকে নিয়মিত দেখা যায় সরকারি অনুষ্ঠানে।

সামনেই পুজো। বহু বছর আগে কবি জয় গোস্বামী একটি কবিতায় লিখেছিলেন শরৎকালের কথা: ‘সাদ সাদা শরৎকালে উড়ে যাচ্ছে মাথার উপর দিয়ে।’ এবার কবির মুখে উঠে এল দুর্গা পুজো ঘিরে নিজের জীবনের নানা স্মৃতি। তিনি বলেন, “পুজোর দিনগুলিতে দুর্গার কাছে আমার প্রার্থনা, তিনি যেন প্রতি বছর আমাদের স্নেহে-সৌহার্দ্যে মিলিত হতে আর পরস্পরকে ভালবাসতে শেখান। তিনি যেন মানুষের মনের ভেতরকার অসুররূপী অন্যায়গুলিকে বিনাশ করেন। তাহলে সারা পৃথিবীতে শান্তি ছড়িয়ে পড়বে।”

পুজোর সময় নানা পত্রিকার শারদ সংখ্যায় আমরা বিশিষ্টি সাহিত্যিকদের লেখা পড়ার সুযোগ পাই। এ বারও বিভিন্ন পত্রিকার শারদীয়া সংখ্যায় প্রকাশিত হয়েছে কবি জয় গোস্বামীর কবিতা। পুজোর কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন, “সামনে পুজো। ছোটবেলার পুজো অভাবেই কেটেছে। যে রানাঘাটে আমি পুজোর দিনগুলোয় একা একা ঘুরে বেড়াতাম, সেখান থেকে এখন পুজো মণ্ডপ উদ্বোধনের ডাক পাই। এটা ভাল লাগে। প্রতি বছরের মতো এবারও অসুরনাশিনী দেবী দুর্গা আমাদের জীবনে আসছেন। পরিণত বয়সে এসে, শিশুদের আনন্দ করতে দেখে যেন নিজের সহজ শৈশবকে ওদের মধ্যে ফিরে পাই।”