কলকাতা: মারিও রিভেরা যুগ অতীত লাল-হলুদে। গত মরশুমে কোচ আলেজান্দ্রো মেনেনদেসের সহকারী হিসেবে এবং দলের ভিডিও অ্যানালিস্ট হিসেবে প্রশংসা কুড়োলেও নতুন মরশুমে মারিও’র পরিবর্ত খুঁজে নিল ইস্টবেঙ্গল। লাল-হলুদে আলেজান্দ্রোর নতুন সহকারী হলেন জোসেপ ফেরে। অর্থাৎ স্প্যানিশ অ্যাটাকিং মিড-ফিল্ডার স্যান্টোস কোলাডোকে ধরে রাখার পাশপাশি কোচিংয়েও আলেজান্দ্রোর সরকারী হলেন সেই স্প্যানিশ৷

জন্ম স্পেনের বার্সেলোনায়। তাই বলাই যায় লাল-হলুদে এবার বার্সেলোনা কানেকশন। ফুটবল সার্কিটে জোসেপের পরিচিত নাম কোকো। বছর পঁয়ত্রিশের কোকো গত মরশুমে পুয়ের্তো রিকোর ক্লাব বায়মন এফসি’র দায়িত্ব সামলেছেন। বছর ছয়েক আগে বুরিরাম ইউনাইটেডে আলেজান্দ্রোর সহকারী হিসেবে কাজ করেছেন তিনি, যা নতুন মরশুমে লাল-হলুদের সহায়ক হবে বলে মনে করছে ফুটবলমহল।

নতুন মরশুমে সামান্য দেরিতে হলেও ধীরে ধীরে ঘর গুছিয়ে নিচ্ছে ইস্টবেঙ্গল। সেই লক্ষ্যে বোরহা, কাশিম, কোলাডোর পর বিদেশি সহকারী কোচ হিসেবে উয়েফা ‘এ’ লাইসেন্সধারী জোসেপ ফেরের নাম ঘোষণা করল কোয়েস ইস্টবেঙ্গল। কোচিং ডিগ্রি ছাড়াও স্পোর্টস সায়েন্স ও ভিডিও অ্যানালিস্ট হিসেবে বিশেষ সুখ্যাতি রয়েছে কোকোর।

বুধের সন্ধ্যায় আনুষ্ঠানিকভাবে কোলাডোর আরও ২ বছর লাল-হলুদে থেকে যাওয়ার বিষয়টি ঘোষণা করা হয় লাল-হলুদ কর্তৃপক্ষের তরফে। অর্থাৎ বোরহা গোমেজ, কাশিম আইদারার পর তৃতীয় বিদেশি হিসেবে আগামী মরশুমে পুরনো সৈনিকেই আস্থা রাখল কোয়েস ইস্টবেঙ্গল। আগামী মরশুমে কোলাডোর দলে থেকে যাওয়ার বিষয়টি যে ইস্টবেঙ্গলের একটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। গত মরশুমে আই লিগের দ্বিতীয় ডার্বিতে গোল করে লাল-হলুদ জনতার নয়নের মণি হয়ে উঠেছিলেন এই স্প্যানিশ মিড-ফিল্ডার।