লন্ডন: তাঁর চোখে দেখা সর্বকালের সেরা আইপিএল (All Time IPL XI) একাদশ বেছে নিলেন রয়্যালসদের (Rajasthan Royals) ইংরেজ ওপেনার জস বাটলার (Jos Buttler)। উল্লেখযোগ্যভাবে উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানের বেছে নেওয়া সেরা একাদশে নেই কোনও অজি ক্রিকেটার। আরও উল্লেখযোগ্য ব্যাপার হল মিস্টার আইপিএল সুরেশ রায়নাকেও (Suresh Raina) তাঁর পছন্দের একাদশে জায়গা দেননি বাটলার। ওপেনার হিসেবে বাটলার তাঁর একাদশে নিজের সঙ্গে রেখেছেন প্রাক্তন অধিনায়ক রোহিত শর্মাকে (Rohit Sharma)।

উল্লেখ্য ছ’বছরের আইপিএল কেরিয়ারে রাজস্থান রয়্যালসের আগে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের (Mumbai Indians) জার্সি গায়ে ক্রিকেট খেলেছেন এই মারকুটে ব্যাটসম্যান। ২০১৭ রোহিতের চ্যাম্পিয়ন দলের সদস্যও ছিলেন তিনি। কিন্তু এরপর ২০১৮ সংক্ষিপ্ত ফর্ম্যাটে ইংল্যান্ডের জাতীয় দলের এই ইউটিলিটি ক্রিকেটার নাম লেখান রাজস্থান রয়্যালসে। চলতি বছর আইপিএলে স্থগিতাদেশ নেমে আসার আগে টুর্নামেন্টের একমাত্র বিদেশি ব্যাটসম্যান হিসেবে শতরান এসেছিল বাটলারের ব্যাটে। ক্রিকবাজের সঙ্গে আড্ডায় সেই বাটলার বেছে নিলেন তাঁর সেরা একাদশ।

দলের উইকেটরক্ষক হিসেবে বাটলার স্থান দিয়েছেন তাঁর পছন্দের মহেন্দ্র সিং ধোনিকে (MS Dhoni)। ইংরেজ উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানের দলে জায়গা হয়নি ক্রিস গেইলের (Chris Gayle)। তার চেয়েও বেশি অবাক করেছে তৃতীয় সর্বাধিক রানাধিকারী রায়নার দলে জায়গা না পাওয়াটা। যদিও সেটা তাঁর একান্তই ব্যক্তিগত ব্যাপার। বোলিং বিভাগে লাসিথ মালিঙ্গা (Lasith Malinga) তো রয়েছেনই, পাশাপাশি স্পিনিং বিভাগে একমাত্র স্পিনার হিসেবে হরভজনের (Harbhajan Singh) অন্তর্ভুক্তি বেশ উল্লেখযোগ্য। ব্যাট হাতে বাটলারের মিডল-অর্ডারে ভরসা দেবেন এবি ডি’ভিলিয়ার্স (AB De Villiers)। অবশ্যই রয়েছেন টুর্নামেন্টের সর্বাধিক রানাধিকারী আরসিবি অধিনায়ক বিরাট কোহলি (Virat Kohli)।

ইংরেজ ক্রিকেটারের দলে অল-রাউন্ডার হিসেবে ভরসা জোগাবেন তাঁর একদা সতীর্থ কায়রন পোলার্ড (Kieron Pollard) এবং সিএসকে’র রবীন্দ্র জাদেজা (Ravindra Jadeja)। ইন্ডিয়ান প্রিমিয়র লিগে ৬৪ ইনিংসে ১,৯৬৮ আইপিএল রান করা বাটলারের পেস বিভাগে কিংবদন্তি মালিঙ্গা ছাড়াও রয়েছেন জসপ্রীত বুমরাহ (Jasprit Bumrah) এবং ভুবনেশ্বর কুমার (Bhuvneshwar Kumar)।

  • একনজরে দেখে নেওয়া যাক বাটলারের সেরা আইপিএল একাদশ: বাটলার, রোহিত, কোহলি, ডি’ভিলিয়ার্স, ধোনি (উইকেটরক্ষক), পোলার্ড, জাদেজা, হরভজন, ভুবনেশ্বর, বুমরাহ, মালিঙ্গা।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.