কলকাতা: সুপার কাপ বিতর্কে ইনভেস্টর গ্রুপের সঙ্গে গাঁটছড়া খুলে বেরিয়ে আসার সম্ভাবনা তৈরি হলেও আপাতত সেই ইস্যুতে ধীরে চলো নীতি লাল-হলুদে। কোয়েস গ্রুপের সঙ্গে বিবাদ মিটিয়ে আগামী মরশুমের জন্য দলগঠনের কাজ শুরু করে দিল ইস্টবেঙ্গল। সেই লক্ষ্যে সদ্য শেষ হওয়া মরশুমে আই লিগে দেশের সর্বোচ্চ গোলদাতা জবি জাস্টিনকে ধরে রাখা প্রায় নিশ্চিত করল ইস্টবেঙ্গল।

ভারতীয় ফুটবল ফেডারেশনের নিয়ম অনুযায়ী সংশ্লিষ্ট ফুটবলারের টোকেন যে ক্লাবের কাছে থাকবে, খাতায়-কলমে ওই ফুটবলার তাদেরই। সেই মোতাবেক মালায়ালি স্ট্রাইকার জবি জাস্টিনের টোকেন চলে এল ইস্টবেঙ্গলের কাছে। শুক্রবার ক্লাবের হাতে জবি নিজে সেই টোকেন তুলে দিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। আই লিগ শেষ হতেই জবির এটিকে-তে পা বাড়ানোর খবর ছড়িয়ে যায় ময়দানে।

আরও পড়ুন: ওয়ার্নারকে ম্যাচ জয়ের যাবতীয় কৃতিত্ব দিলেন রাহানে

তাই টোকেন নিজেদের দখলে নিয়ে জবির এটিকে-তে যাওয়া বাতিল করে প্রথম কাজটা সারল লেসলি ক্লডিয়াস সরনীর ক্লাব। জবির সঙ্গে ক্লাবের আরও একবছরের চুক্তি রয়েছে বলে দাবি করে জবির আগামী মরশুমে থেকে যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন কর্তারা। জবি নিশ্চিত হয়ে যাওয়ার পর আলেজান্দ্রোর পরিকল্পনামাফিক বাকি দেশীয় ফুটবলার ও এনরিকের পরিবর্ত খোঁজার কাজে নামবে ইস্টবেঙ্গল।

আরও পড়ুন: ফের সোনা জয় মনুর, দলগত ইভেন্টে সোনা সৌরভের

এদিকে সুপার কাপে অংশগ্রহণ না করলেও দু’প্রধান অনুশীলন করছে পুরোদমে। মনেপ্রাণে সুপার কাপে অংশগ্রহণ করার বিষয়ে আগ্রহী থাকলেও ক্লাবের উপরেই সিদ্ধান্ত ছেড়ে দিচ্ছেন আলেজান্দ্রো। আগামী মরশুমে ট্রফি জয়ের সংকল্প করছেন তিনি। ক্লাব জোটের সঙ্গে থাকায় প্রথমে আশা দেখা দিলেও ইস্টবেঙ্গল আইএসএলে বিড তুলবে কিনা, পরিষ্কার নয় এখনও। অন্যদিকে মোহনবাগানের ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে খেলার সম্ভাবনা একেবারেই নেই।

জোট মাথা নত না করায় চাপে রয়েছেন ফেদারেশন কর্তারাও। আইএসএল বিডের দিনক্ষণ নির্ধারণ করতেই সম্ভবত রিলায়েন্স গোষ্ঠীর সঙ্গে আলোচনায় বসেন তারা। তবে দিনক্ষণ নিশ্চিত নয় এখনও।