কলকাতা: বহুদিন বাদে ইস্টবেঙ্গলের আপফ্রন্টে ভারতীয় এক স্ট্রাইকারের দাপট। যা লাল-হলুদকে পৌঁছে দিয়েছে আই লিগ চ্যাম্পিয়নশিপের একদম শেষ ল্যাপ অবধি। লিগের শেষ ম্যাচের আগে অবধি ৯ গোল করে এনরিকের সঙ্গে যুগ্মভাবে দলের শীর্ষ গোলদাতা তিনি। শুধু তাই নয় চলতি আইলিগে সর্বোচ্চ ভারতীয় গোলস্কোরার ইস্টবেঙ্গলের কেরল স্ট্রাইকার জবি জাস্টিন। চলতি আই লিগের জোড়া ডার্বিতে গোল করে বাইচুং-অ্যালভিটোদের সঙ্গে বসে পড়েছেন একাসনে। এহেন জবির চলতি মরশুম কার্যত শেষ লাল-হলুদ জার্সি গায়ে।

দলবদলের টানাপোড়েনে আগামী মরশুমে লাল-হলুদে থাকবেন কিনা জানা নেই, তবে সুপার কাপের ফাইনালে দল না পৌঁছলে এ মরশুমে আর মাঠে নামা হচ্ছে না জবি জাস্টিনের। থুথু কান্ডে তাঁকে ছ’ম্যাচ ব্যান করল ভারতের ফুটবল ফেডারেশনের শৃঙ্খলারক্ষা কমিটি। ২৫ ফেব্রুয়ারি ঘরের মাঠে আইজলের বিরুদ্ধে ম্যাচে বিপক্ষ ফুটবলার করিম ওমোলজার গায়ে থুথু ছেটানোর অভিযোগে প্রাথমিকভাবে ৬ মার্চ অবধি তাঁকে ব্যান করেছিল এআইএফএফ। কিন্তু শাস্তি প্রমাণিত হওয়ায় শেষমেষ ছ’ম্যাচ নির্বাসনের খাঁড়া নেমে এল তাঁর উপর।

আরও পড়ুন: বিজয় শঙ্করের শেষ ওভার মনে করাল যোগিন্দর শর্মাকে

ফলে আই লিগের শেষ ম্যাচে গোকুলামের বিরুদ্ধে তো বটেই, এমনকি সুপার কাপের প্রথম তিন ম্যাচেও তাঁকে পাওয়ার সম্ভাবনা নেই আলেজান্দ্রো ব্রিগেডের। জবির শাস্তি প্রসঙ্গে শৃঙ্খলারক্ষা কমিটির প্রধান ঊষানাথ গঙ্গোপাধ্যায় জানান, ‘উপযুক্ত কারণ থাকার ফলেই জবির এই শাস্তি বরাদ্দ হয়েছে।’ অন্যদিকে ইস্টবেঙ্গলের জার্সি গায়ে দুর্দান্ত একটি মরশুম কাটানোর শেষে এসে ছন্দপতন। কেরল স্ট্রাইকার তাঁর কৃতকর্মের জন্য ক্লাব ও সমর্থকদের কাছে দুঃখপ্রকাশ করেন। পাশাপাশি এআইএফএফ-র কাছে শাস্তি কমানোর জন্য আবেদন করছেন বলে জানান তিনি। যদিও সেই আবেদন কতটা ফলপ্রসূ হবে সেটা সময় বলবে।

আরও পড়ুন: ৯ বছর পর গোল্ডেন ডাক ধোনির

তবে নির্বাসনের কারণে সুপার কাপও বল পায়ে মাঠে নামা অনিশ্চিত জবির। একমাত্র দল ফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করলে তবেই মাঠে নামতে পারবেন তিনি। এদিকে ১৮ ফেব্রুয়ারি ভেস্তে যাওয়া রিয়েল কাশ্মীর-মিনার্ভা ম্যাচটি পুনরায় আয়োজন করতে চলেছে এআইএফএফ-র এমার্জেন্সি কমটি। সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী ১২ মার্চ দিল্লিতে অনুষ্ঠিত হবে ম্যাচটি।