ফাইল ছবি

শ্রীনগর: পরপর হামলা চলছে কাশ্মীরে৷ একদিকে অনন্তনাগে চলছে গুলির লড়াই, অন্যদিকে পুলওয়ামায় তার কয়েক ঘন্টা ব্যবধানেই সেনা কনভয়ের উপর আচমকা হামলা চালায় জঙ্গিরা৷ বিস্ফোরণের সাহায্যে কনভয়ের একটি গাড়ি উড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়৷ ওই ঘটনাতেই দুই জওয়ান গুরুতর জখম হন৷

মঙ্গলবার সকালে আহত দুই জওয়ান শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন৷ এই দুই জওয়ানের সঙ্গে আরও সাত জওয়ান আহত হয়েছিলেন৷ আহত হয়েছিলেন দুই নাগরিকও৷ তাদের দ্রুত হাসপাতালে ভরতি করা হয়৷ মঙ্গলবার মারা যান দুই জওয়ান৷ ৪৪ রাষ্ট্রীয় রাইফেলসের এই কনভয় আরিহাল-পুলওয়ামা রোড ধরে এগোচ্ছিল৷ তখনই আইইডি বিস্ফোরণ ঘটে৷ বুলেট ও মাইনরোধক গাড়ি হলেও শেষ রক্ষা হয়নি৷

আরও পড়ুন : পুলওয়ামা হামলার দুই জঙ্গিকে নিকেশ করল সেনাবাহিনী

শ্রীনগরের প্রতিরক্ষা মুখপাত্র কলোনেল রাজেশ কালিয়া সোমবারই বলেছিলেন এটা ব্যর্থ প্রচেষ্টা ছিল৷ কিন্তু তাঁর এই মন্তব্যকে ব্যর্থ প্রমাণ করে মঙ্গলবার সকালে মারা গেলেন দুই জওয়ান৷ তবে এই হামলা হতে পারে বলে আগেই ওই কনভয়কে সতর্ক করা হয়েছিল৷ উল্লেখ্য ১৪ই ফেব্রুয়ারি যেখানে ৪০ জন জওয়ানের প্রাণ নিয়েছিল জঙ্গিরা, সেই এলাকা থেকে সোমবারের হামলাস্থল ২৭ কিমি দূরে৷

পুলওয়ামাতে হামলার আশঙ্কা প্রকাশ করে সম্প্রতি ভারতকে সতর্ক করে পাকিস্তান৷ তবে সেই সতর্কবার্তায় অবন্তিপোরার কথা বলা হয়েছিল৷ গত মাসে এনকাউন্টারে অবন্তীপোরাতে খতম হয় কুখ্যাত জঙ্গি জাকির মুসা৷ তার মৃত্যুর বদলা নিতেই ভারতে হামলা চালাতে তৎপর হয়ে উঠেছে জঙ্গিরা৷ উল্লেখ্য, ফেব্রুয়ারি মাসে এই পুলওয়ামাতেই আত্মঘাতী জঙ্গি হামলায় ৪০ জনের বেশি জওয়ান শহিদ হন৷ তারপরেই ভারত-পাক সম্পর্ক তলানিতে গিয়ে ঠেকে৷

আরও পড়ুন : অনন্তনাগের এনকাউন্টারে শহিদ মেজর কেতন শর্মা, মঙ্গলবার শেষকৃত্য

এর আগে গত ১২ জুন অনন্তনাগে সিআরপিএফ-জঙ্গির গুলির লড়াইয়ে ৫ জওয়ান শহিদ হন৷ শহিদ জওয়ানরা হলেন, এএসআই রমেশ কুমার(ঝঝ্ঝর, হরিয়ানা). এএসআই নিরোদ শর্মা (নলবাড়ি, অসম), সিটি সত্যেন্দ্র কুমার (মুজফ্ফরনগর, উত্তরপ্রদেশ), সিটি মহেশ কুমার কুশওয়াহা(গাজিপুর, উত্তপ্রদেশ) এবং সিটি সন্দীপ যাদব (দেওয়াস, মধ্যপ্রদেশ)৷

এদিকে সোমবার সকালেই সেনা-জঙ্গির গুলির লড়াইয়ে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয় জম্মু-কাশ্মীরের অনন্তনাগ৷ আর্মি মেজর এই এনকাউন্টার পর্বে শহিদ হন এবং এক জঙ্গিকে খতম করা হয়েছে বলেও জানা গিয়েছে৷ পাশাপাশি, ১৯ রাষ্ট্রীয় রাইফেলসের ২ সেনা এবং এক সেনা আধিকারিক আহত হন এবং জম্মু-কাশ্মীরের ডিজিপি দিলবাগ সিং জানান, এখনও এনকাউন্টার চলছে৷ এই পর্ব শেষ হলে এ সম্পর্কে আরও তথ্য দেওয়া সম্ভবপর হবে বলে তিনি জানান৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।