লন্ডন- বেশ কিছুদিন ধরেই কোভিড ১৯ এর বেশ কিছু উপসর্গ নিজের মধ্যে লক্ষ্য করছিলেন। জানালেন হ্যারি পটার খ্যাত লেখিকা জেকে রাউলিং। কিন্তু এখন আর সেই সব উপসর্গ নেই এবং সুস্থ। টুইটারে জানান লেখিকা। সম্প্রতি টুইটারে একটি পোস্টের মাধ্যমেই নিজেই রাউলিং জানান যে গত দু সপ্তাহ ধরে বেশ কিছু উপসর্গ দেখছেন যা কোভিড ১৯-এর উপসর্গের সঙ্গে মিলে যায়।

উপসর্গ দেখলেও এর জন্য কোনও পরীক্ষা করাননি তিনি। বরং স্বামী ডক্টর নিল মুরের পরামর্শ মেনে চলছিলেন। মুরে পেশায় একজন চিকিৎসক। তাই এই উপসর্গগুলি থেকে মুক্তি পেতে কী কী করণীয় তিনিই বলে দিয়েছিলেন। আর সেগুলিই মেনে চলছিলেন জেকে রাউলিং।

টুইটারে রাউলিং একটি ভিডিও পোস্ট করে ক্যাপশনে লিখেছেন, ফুসফুসের সমস্যার উপসর্গ থেকে বাঁচতে কী করণীয় কুইনস হাসপাতালের চিকিৎসক যা বলছেন দেখুন। গত দু সপ্তাহে আমার করোনার সমস্ত উপসর্গ ছিল। কিন্তু আমি পরীক্ষা করাইনি। শুধু আমার এই চিকিৎসক স্বামীর পরামর্শ শুনেছি। আমি এখন পুরো সুস্থ আর এই টেকনিক আমায় সাহায্য করেছে। আরও একটি ফলো আপ টুইট করে জেকে রাউলিং তাঁর ফলোয়ারদের ধন্যবাদ জানান।

তিনি লেখেন, এত সুন্দর বার্তার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ। আমি সত্যিই পুরো সুস্থ আর চিকিৎসকদের এই পদ্ধতিটা সবার সঙ্গে শেয়ার করতে চেয়েছিলাম। এর কোনও খরচ নেই কোনও পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াও নেই। কিন্তু এই পদ্ধতির মাধ্যমে আপনি আপনার প্রিয়জনদের সাহায্য করতে পারবেন।

প্রসঙ্গত সম্প্রতি হলিউডের অভিনেত্রী লি ফিয়েরোর কোভিড ১৯ এ আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে। মৃত্যুকালে অভিনেত্রীর বয়স হয়েছিল ৯১। মার্কিন পরিচালক স্টিভেন স্পিলবার্গের ছবি জস-এ মিসেস কিন্টনার-এর ভূমিকায় অভিনয় করে জনপ্রিয় হন তিনি। তাঁর মৃত্যুতে হলিউডের অনেকেই শোক প্রকাশ করেছেন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।