শ্রীনগর: ভূস্বর্গে যত উত্তাপ বাড়ছে, তত বেশি করে অত্যাধুনিক যন্ত্র নিয়ে আসছে কাশ্মীর পুলিশ। সম্প্রতি, জঙ্গি রুখতে এরকমই এক প্রযুক্তি ব্যবহার করতে চলেছে পুলিশ। এই প্রযুক্তিতে আত্মঘাতী জঙ্গি হামলা কমানো সম্ভব বলে অনুমান করা হয়।

এই যন্ত্রের দাম আনুমানিক আট কোটি টাকা। এই মেশিনকে বলা হচ্ছে ‘ইনট্রিউশন ডিটেকশন সিস্টেম’। কোনও অনুপ্রবেশ ধরা পড়বে এই সিস্টেমে। এতে থাকবে ‘শক সেন্সর’ যাতে ভাইব্রেশনে ধরা পড়বে যে কোনও অনুপ্রবেশ। সীমান্ত পেরিয়ে কেউ প্রবেশ করার চেষ্টা করলেই কম্পন ধরা পড়বে ওই মেশিনে। চালু হয়ে যাবে অ্যালার্ম। বিশেষ মনিটরিং ডেস্কে পৌঁছে যাবে সেই সিগন্যাল। এর ফলে অনুপ্রবেশের অনেক আগেই সতর্ক হয়ে যেতে পারবে নিরাপত্তারক্ষীরা।

আরও পড়ুন: জঙ্গিদের মুখোমুখি দাঁড়িয়ে লড়াই করতে সক্ষম বায়ুসেনার ‘গরুড় বাহিনী’

সূত্রের খবর, দিনের আলোয় নিরাপত্তা বাড়াতে রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি আইডেন্টিফিকেশন ভেইকল বসাবে কাশ্মীর পুলিশ। কেবলমাত্র উচ্চপদস্থ আধিকারিকেরা বিশেষ ট্যাগ ব্যবহার করে ওই গাড়ি ব্যবহার করতে পারবেন। এছাড়া হাতে রাখা যায় এমন জিপিআর সিস্টেমও রয়েছে শপিং লিস্টে। মাটির তলায় থাকা ল্যান্ডমাইন কিংবা যে কোনও বিস্ফোরক ডিভাইস খুঁজে পাবে ওই জিপিআর সিস্টেম।

এছাড়া কাশ্মীরের রাস্তায় চলা বিক্ষোভ আটকাতে গ্যাস মাস্ক পাচ্ছে পুলিশ। কারণ অনেক সময়েই কাঁদানে গ্যাসে অসুস্থ হয়ে পরেন পুলিশকর্মীরা। গ্যাস মাস্ক পরলে সেই সমস্যার সমাধান হবে। এইভাবেই ক্রমশ প্রযুক্তিগতভাবে উন্নত হবে কাশ্মীর পুলিশ।

আরও পড়ুন: এই প্রথম একইসঙ্গে সেনা ট্রেনিং নিচ্ছেন দেশের ৬০০ মহিলা

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।