ফাইল ছবি৷

শ্রীনগর: কাশ্মীরের বিজেপি নেতাদের প্রাণ এখন সংশয়ে ৷ জঙ্গিদের হিটলিস্টে নাম রয়েছে উপত্যকার কয়েকজন বিজেপি নেতার৷ সম্প্রতি কাশ্মীর পুলিশের কাছে এই সতর্কবার্তা পাঠায় ভারতের গোয়েন্দা এজেন্সিগুলি৷ জঙ্গিদের হিটলিস্টে নাম রয়েছে উপত্যকার বিজেপি সভাপতি রবীন্দর রাইনারও৷ যদিও তিনি রাজ্য সরকারের দেওয়া নিরাপত্তা পান৷

গোয়েন্দাদের সতর্কবার্তাকে হালকাভাবে না নিলেও পুলিশ জানিয়েছে, এই তথ্য তাদের কাছে নতুন নয়৷ গোয়েন্দা সংস্থাগুলির কাছ থেকে হামেশাই এই ধরনের সতর্কবার্তা আসে৷ ফলে অত চিন্তিত বা উদ্বেগে পড়ে যাওয়ার কিছু নেই৷ খবর শুনে বিচলিত হননি রবীন্দর রায়নাও৷ বিজেপি নেতাদের একাংশ জানিয়েছেন, ভুলে গেলে চলবে না এটা কাশ্মীর৷ দেশের আর পাঁচটা রাজ্যের মতো এখানকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক নয়৷ ফলে এই খবর শুনে অত বিচলিত হওয়ার কিছু নেই৷ প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করে যেতে হবে৷

জম্মু রিজিওয়নের আইজি এম কে সিনহা জানান, রাজ্যের বিভিন্ন জেলার পুলিশ সুপারদের কাছে গোয়েন্দা সতর্কবার্তা পাঠানো হয়েছে৷ বিশেষ করে পুঞ্চ, রাজৌরি, কাঠুয়া ও সাম্বা মতো স্পর্শকাতর এলাকার পুলিশ স্টেশনগুলিকে অতিরিক্ত সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে৷

অতীতে জঙ্গিদের গুলিতে বেশ কয়েকজন বিজেপি নেতা প্রাণ হারিয়েছেন৷ ৪ মে দক্ষিণ কাশ্মীরের নওগামে গুল মহম্মদ মীর নামে এক বিজেপি নেতাকে গুলি করে খুন করে জঙ্গিরা৷ তার কিছুদিন আগে কাশ্মীরে খুন হন এক আরএসএস নেতা৷ হাসপাতালের ভিতর ঢুকে চন্দ্রকান্ত নামে ওই আরএসএস নেতাকে খুন করা হয়৷ তাঁর দেহরক্ষীর উপর হামলা চালানো হয়৷ ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় চন্দ্রকান্তের৷ চন্দ্রকান্তের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়তে বিজেপি ও আরএসএস নেতারা হাসপাতালের সামনে এসে বিক্ষোভ দেখান৷