শ্রীনগর: টানা গুলির লড়াই৷ অবশেষে বুধবার জঙ্গিমুক্ত এলাকা৷ সেই সাফল্যকে সামনে রেখেই জম্মু কাশ্মীরের বারামুলা জেলাকে জঙ্গিমুক্ত জেলা হিসেবে ঘোষণা করল পুলিশ৷ বুধবার তিন জঙ্গিকে বারামুলা জেলার বিন্নার গ্রামে নিকেশ করে সেনা৷

তারপরেই পুলিশ বারামুলাকে জঙ্গিমুক্ত জেলা হিসেবে ঘোষণা করে৷ পুলিশ জানাচ্ছে বারামুল্লা কোনও জঙ্গি জীবিত নেই৷ ফলে এই জেলা একেবারেই জঙ্গি মুক্ত৷ সন্ত্রাসমুক্ত রাখতে এই জেলায় নিয়মিত নজরদারি দলবে বলে জানানো হয়েছে৷ পুলিশের পক্ষ থেকে এই জেলার মানুষদের ধন্যবাদ জানানো হয়েছে৷ এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে সাধারণ মানুষের সাহায্য না পেলে, কোনওভাবেই পুলিশ ও সেনা এই তল্লাশি অভিযান চালাতে পারত না৷ মানুষের সহযোগিতাতেই এই সাফল্যলাভ সম্ভব হয়েছে৷

জম্মু কাশ্মীর পুলিশের ডিজিপি দিলবাগ সিং পুলিশ বাহিনীকেও এই সাফল্যের জন্য অভিনন্দন জানিয়েছেন৷ তিনি বলেন জম্মু কাশ্মীর পুলিশের লক্ষ্য উপত্যকায় শান্তি বজায় রাখা ও সাধারণের সঙ্গে সমন্বয় বজায় রেখে সন্ত্রাস মুক্ত এলাকা গড়ে তোলা৷ কাশ্মীরে শান্তি বজায় রাখা প্রয়োজন বলে তিনি জানান৷ তাঁর মত কাশ্মীরের সুন্দর ভবিষ্যতের জন্য অতীত ভুলে বর্তমানকে মজবুত করতে হবে৷

বুধবার বারামুলা জুড়ে তল্লাশি অভিযানে নামে নিরাপত্তা বাহিনী৷ মূলত বিন্নার গ্রাম জুড়ে এই তল্লাশি চলে৷ সেখানেই খতম করা হয় তিন জঙ্গিকে৷ সুহেব ফারুখ আখুন, মহসিন মুস্তাক ও নাসির আহমেদ দর্জি নামে ওই তিন জঙ্গিকে নিকেশ করা হয়৷ পুলিশ সূত্রে তাদের নাম জানা গিয়েছে৷

যে জঙ্গিদের খতম করা হয়েছে, তারা বারামুলা ও সোপোর এলাকায় সক্রিয় ছিল৷ বেশ কয়েকটি নাশকতামূলক কাজের সঙ্গে তাদের প্রত্যক্ষ যোগ ছিল বলে জানতে পেরেছে পুলিশ৷ ২০১৮ সালের এপ্রিল মাসে বারামুলাতে তিন কাশ্মীরি যুবককে খুন করে এই জঙ্গিরা৷ এছাড়াও বারামুলাতেই ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে ও ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে দুবার থানায় গ্রেনেড হামলা হয়৷ সেই ঘটনার সঙ্গেও এই তিন জঙ্গি জড়িত ছিল বলে পুলিশ সূত্রে খবর৷