নয়াদিল্লি: আগেই জানানো হয়েছিল যে ডিসেম্বর থেকে ট্যারিফ বাড়তে চলেছে। ১ ডিসেম্বরেই সেই রেট জানিয়ে দেওয়া হল। আর জিও যে পরিমাণ টাকা বাড়িয়েছে, তাতে মাথায় হাত বহু মানুষের। একধাক্কায় ৪০ শতাংশ রেট বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে এই টেলিকম সংস্থার।

ইতিমধ্যেই জিও বেশ কিছু নতুন প্ল্যান এনেছে। তাতে কীভাবে সাশ্রয় হতে পারে, তা বিবেচনা করে তবেই রিচার্জ করতে হবে।

জানা গিয়েছে,আগামী ৬ ডিসেম্বর থেকে জিও একটি ‘অল ইন ওয়ান প্ল্যান’ নিয়ে আসছে। এতে আনলিমিটেড ভয়েস কল ও ডেটা পাওয়া যাবে। অন্য নেটওয়ার্কে ফোন করার ক্ষেত্রেও বেশ কিছু ছাড় রয়েছে বলে জানা যাচ্ছে।

সংস্থার তরফ থেকে এক বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে যে ট্যারিফ বাড়বে ৪০ শতাংশই। কিন্তু এই ট্যারিফের জন্য ৩০০ শতাংশ বেশি সুবিধা পাবে গ্রাহকরা।

জিও জানিয়েছে বর্তমানে টেকনোলজির উপরে ভরসা বাড়ছে মানুষের। আর জিও এই পরিস্থিতি বুঝেই ক্রেতাদের জন্য এই ধরণের আকর্ষণীয় প্ল্যান নিয়ে এসেছে। যার ফলে ডিজিটাল দুনিয়াতে মানুষ আরও বেশী প্রবেশ করতে পারবে। আর ভারতীয় অর্থনীতির কথা বিচার করে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। যেখানে ক্রেতারাই প্রাধান্য পাবে।

এর আগে ভোডাফোন এবং এয়ারটেল তাঁদের নতুন প্ল্যানের কথা ঘোষণা করেছিল। যা ক্রেতাদের জন্য সামনে আসবে ৩ রা ডিসেম্বর।

প্রতিদ্বন্দ্বী টেলিকম সংস্থা এয়ারটেল ভোডাফোন মাসুল বাড়ানোর পরের দিনই জিও এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছিল৷ চরম লোকসানের মুখে ভোডাফোন-আইডিয়া। ভারত ছাড়তে হতে পারে এমন সম্ভাবনাও তৈরি হয়েছিল। কোটি কোটি টাকা ঋণের বোঝা রয়েছে জনপ্রিয় এই টেলিকম সংস্থার ঘাড়ে। আর এই ঋণের বোঝা থেকে মুক্তি পেতে সার্ভিস রেট বাড়িয়েছে ভোডাফোন।

ডিসেম্বর থেকেই এয়ারটেলের রেট বাড়ানো হচ্ছে বলে সংস্থার তরফ থেকে জানানো হয়। ভোডাফোনের মত ঋণের বোঝা আছে এয়ারটেলের ঘাড়েও। সম্প্রতি জানা গিয়েছে বিপুল টাকা লোকসানও হয়েছে এই সংস্থার। গত ৩০ সেপ্টেম্বর শেষ হওয়া ত্রৈমাসিকে এয়ারটেলের লোকসান হয়েছে ২৩,০৪৫ কোটি টাকা। অথচ এই বছরের শুরুর দিকে তাদের ১১৮ কোটি টাকা লাভ হয়েছিল বলে জানা গিয়েছে।