নয়া স্মার্টফোন দেবে জিও। কিন্তু তার জন্য কার্যত কোনও টাকাই দিতে হবে না।  কেবলমাত্র ১৫০০ টাকা জমা রাখতে হবে যা পরে ফেরৎ দিয়ে দেবে সংস্থা।

আরও পড়ুন: মধ্যবিত্তের কথা ভেবে সবথেকে সস্তা প্ল্যান ঘোষণা করল JIO

রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রির বার্ষিক সাধারণ সভায় নতুন ফোর-জি ফোন আনলেন মুকেশ অম্বানি। রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রির ৪০তম বার্ষিক সাধারণ সভায় অম্বানি জানালেন ১৯৭৭ সালে যিনি এই সংস্থায় ১০০০টাকা লগ্নি করেছেন তিনি এই ৪০ বছরে আয় করেছেন ১৬.৫ লক্ষ টাকা প্রতি ৭ সেকেন্ডে জিও একজন গ্রাহক পেয়েছে ফলে ১০কোটি গ্রাহক হয়েছে ১৭০ দিনের জিও আসার পর প্রতি মাসে ১২০ কোটি জিবি ব্যবহার বেড়েছে।

আরও পড়ুন: jio-কে চ্যালেঞ্জ! নামমাত্র টাকায় প্রত্যেকদিন 4GB ডেটার ঘোষণা এই সংস্থার

এই বছরের ১৫ অগাস্ট থেকে পরীক্ষামূলকভাবে চলবে ওই ফোন। ২৪ অগাস্ট থেকে শুরু হয়ে প্রি-বুকিং। ১ সেপ্টেম্বর থেকে ফোনটি কেনা যাবে। আগে বুকিং করলে আগে পাওয়া যাবে ফোন।  এতে একাধিক ডেটা প্যাক মিলবে। মাসে ১৫৩টাকা করে দিয়েও ওই ফোন কেনা যাবে। ওই ফোনে পাওয়া যাবে ফ্রি ভয়েস কল, ফ্রি এসএমএস ও আনলিমিটেড ডেটা। এছাড়া জিও অ্যাপসের মাধ্যমে মাসে ৩০৯ টাকা করে দেওয়া যাবে।

এছাড়া টিভিতে দেখা যাবে আপনার ফোনের স্ক্রিন। তিন বছর ব্যবহার করার পর চাইলে ফোনটি ফেরৎ পাওয়া যাবে। তখন ওই ১৫০০ টাকা ফিরিয়ে দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন: পুরনো ডঙ্গেল নিয়ে আসুন! ১০০% ক্যাশব্যাক দেবে Jio

অর্থাৎ, জিও ফোন বাস্তবে একেবারে ‘ফ্রি’ কারণ কোম্পানি ১৫০০টাকা সিকিউরিটি চার্জ করছে যা রিফান্ড করে দেওয়া হবে৷ যা কেনার ৩৬ মাসের মধ্যে ফিরিয়ে দেওয়া হবে৷ অম্বানি বলেছেন, স্কাইপ, ওয়াটসঅ্যাপ ফেসবুকের চেয়ে দ্রুতগামী জিও। ৭৮ কোটি মোবাইল ফোনের মধ্যে ৫০ কোটি ফিচার ফোন ব্যবহারকারীই ডিজিটাল বিপ্লব পেরিয়ে এসেছে বলে উল্লেখ করেন তিনি। জিও ফোন ভারতের ২২টি ভাষায় কাজ করে। জিও ফোনে সুলভ কি বোর্ডে মাধ্যমে হয় ভয়েস কমান্ড।  ফোনে ভয়েস সব সময় ফ্রি।
এই বছরের শেষেই জিও ফোনে এনএফসি পেমেন্টস সম্ভব হবে জিও ফোন গ্রাহকদের আনলিমিটেড ডেটা দিচ্ছে৷ ব্যাবহারকারীরা একই রকম ডেটা অন্য কোনও অপারেটর মারফত নেন তাহলে তাদের প্রতি মাসে ৪০০০-৫০০০ টাকা খরচ হবে৷ সেখানে জিও গ্রাহকরা মাত্র ১৫৩ টাকায় পাচ্ছে এবার এই জিও ফিচার ফোন এলে টুজি ফোন অচল