সৌপ্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা : মঙ্গলবার পার্লামেন্ট যেন বহুরূপী। কেউ রামের নাম নেয় তো কেউ কৃষ্ণের কেউবা আল্লা আবার কেউ তরতরিয়ে বলে গেলেন হিন্দু দেবদেবীদের আরাধ্য মন্ত্র। কিন্তু সব কিছুকে পেরিয়ে যেন নজর কারল জয় শ্রী রাম এবং জয় বাংলার লড়াই। দলীয় স্লোগান নিয়ে পার্লামেন্টে শপথ নেওয়ার সময় এমন লড়াই নজিরবিহীন।

ভারতের পার্লামেন্ট সাধু বাবার বেশে সাংসদ দেখেছে , আবার সম্প্রতি স্টাইলিশ জিন্সেও সাংসদের উপস্থিতিও দেখেছে কিন্তু দলীয় স্লোগান দিয়ে এক দল অন্য দলকে বিব্রত করার চেষ্টা করছে এমন চিত্র সম্ভবত পার্লামেন্ট এই প্রথম দেখল। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের আরও অবাক করেছে , শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানের সময় এমন সব রাজনৈতিক দলীয় স্লোগান তারস্বরে উচ্চারণ। মঙ্গলবার একে একে যখন সাংসদরা শপথ নিচ্ছিলেন তখন দলে ভারী একের পর এক বিজেপি সাংসদরা আসছিলেন আর পিছন থেকে উঠছিল ‘জয় শ্রী রাম’। যেমন দিলীপ ঘোষ , সংস্কৃতে শপথ নিতে গিয়ে মাঝে মাঝে আটকে গেলেও ‘জয় শ্রী রাম’ স্লোগান তাঁর মুখ দিয়েই একদম স্পষ্টভাবেই বেরোলো। আজ তৃণমূল সাংসদরাও শপথ নিচ্ছিলেন। তারা আসতে সেখানেও জয় শ্রী রাম ধ্বনি দেওয়া হয়। দেব বিষয়টিকে পাত্তা না দিয়ে তাঁর ট্রেডমার্ক স্টাইলে বলতে যান ‘আমরা একসঙ্গে সবাই কাজ করব’।

দেব না বললে কি হবে বাকিরা তৈরি ছিলেন যে তারা পালটা দিয়েই ছাড়বেন। দলনেত্রীর নির্দেশ বলে কথা। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলে দিয়েছেন যেখানে জয় শ্রী রাম সেখানেই পালটা স্লোগান হবে জয় বাংলা স্লোগান। তাই করলেন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় , অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। আগে স্পষ্ট বাংলায় পড়েন শপথ বাক্য তারপর রামে পালটা মার ছুঁড়ে দিলেন জয় বাংলা , বাঙালি স্লোগান উচ্চারণে।

প্রসঙ্গত সোমবার লোকসভায় শপথ নেন আসানসোলের সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়। শপথ গ্রহণের জন্য বাবুলের নাম ঘোষণা হতেই লোকসভা জুড়ে ওঠে ‘জয় শ্রী রাম’ ধ্বনি। ‘জয় শ্রী রাম’ স্লোগানে সতীর্থকে অভিবাদন জানাতে দেখা যায় বিজেপির সাংসদদের। ওই দিন বাবুলের পাশাপাশি রায়গঞ্জের সাংসদ দেবশ্রী চৌধুরীও শপথ গ্রহণ করেন। দুই জনের ক্ষেত্রেই শপথ গ্রহণ করার জন্য নাম ঘোষিত হলেই ট্রেজারি বেঞ্চ থেকে ভেসে আসে ‘জয় শ্রী রাম’ ধ্বনি। কিন্তু ঘটনা হল অন্য বিজেপি সাংসদের শপথের সময় জয় শ্রীরাম শোনা না শোনা না গেলেও তাঁদের শপথের সময় ট্রেজারি বেঞ্চ থেকে এই ধ্বনি শোনা যায়। একই ঘটনা দেখা যায় মঙ্গলবারেও।

লোকসভা নির্বাচনের সময় থেকে পশ্চিমবঙ্গে জয় শ্রীরাম বিতর্ক তুঙ্গে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে লক্ষ্য করে একাধিক জায়গায় জয় শ্রীরাম ধ্বনি দেওয়া হয়েছে। সেই বিতর্ককে উসকেই যে বাংলার বিজেপি সাংসদরা শপথ নেওয়ার সময় রামের নামে জয়ধ্বনি দেওয়া হচ্ছে সেই উত্তর এদিন স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন , রাম এবং বাংলা নিয়ে যে দুই স্লোগান তা ছিল শুধুমাত্র একটি রাজ্যের মধ্যে। সেটা এবার উঠে এল পার্লামেন্টেও।

অন্যদিকে বিরোধী দলের বক্তব্য পার্লামেন্টে চেপে দেওয়ার জন্য সাংসদদের গলা ফাটাতে দেখা যায়। এটাই ভারতের পার্লামেন্টের স্বাভাবিক চিত্র। পার্লামেন্টের সেশন এখন শুরু হয়নি। সবে চলছে শপথ গ্রহণ, সেখানেই বিরোধী দলকে টেক্কা দেওয়ার চেষ্টা, তাও জনগণের কাজের স্বার্থে নয়, রাজনৈতিক স্লোগানের স্বার্থে। এই ঘটনা আরও অবাক করেছে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের।