স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: আবারও চলন্ত অটোতে যুবতীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠল উত্তর ২৪ পরগনার বারাকপুরে৷ অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতার করা হয়েছে অভিযুক্ত সেনা জওয়ানকে। ধৃতের নাম শ্যামচরন সাউ। ধৃত ওই জওয়ান হরিয়ানার বাসিন্দা বলে পুলিশ সূত্রের খবর।

প্রসঙ্গত, ঘটনার সূত্রপাত শুক্রবার রাত সাড়ে আটটা নাগাদ৷ ওই যুবতী পেশায় টেলি সিরিয়ালের অভিনেত্রী এদিন অটো করে মাসির বাড়িতে আসছিল। তাই বেলঘরিয়া রথতলা বি.টি.রোড থেকে ওই যুবতী ডানলপ বারাকপুর রুটের অটোতে ওঠে। অটো বিটি রোড ধরে বারাকপুরের দিকে কিছু দূর এগোতেই আগরপাড়ার কাছ থেকে ওই অটোয় ওঠেন অপর এক ব্যক্তি। এরপরেই সেই ব্যাক্তি ওই যুবতীর সঙ্গে অটোর ভিতরে বসেই অশ্লীল আচরণ করতে শুরু করে বলে অভিযোগ ওঠে৷ অভিযোগ, ওই যুবতীর শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ক্রমাগত হাত দিতে থাকে সে৷ ওই যুবতী অটোর মধ্যেই সেই ঘটনার প্রতিবাদ জানায়।

আরও পড়ুন: দল ছেড়েছেন রাজনীতি নয়, জানালেন মুশারফ

অটোটি যখন বারাকপুর চিড়িয়ামোড়ের কাছে পৌঁছয় তখন ওই অটো থেকে অভিযুক্ত ব্যাক্তিকে তার জামার কলার ধরে নামিয়ে আনে ওই যুবতী৷ সোজা তাকে নিয়ে যায় ট্রাফিক পুলিশের কাছে। গোটা ঘটনার অভিযোগ জানায় পুলিশকে। এরপর টিটাগড় থানার পুলিশ এসে অভিযুক্ত ওই ব্যাক্তিকে আটক করে টিটাগড় থানায় নিয়ে যায়। আক্রান্ত যুবতী শুক্রবার রাতেই টিটাগড় থানায় অভিযুক্ত ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার লিখিত অভিযোগ দায়ের করে।

পুলিশ সূত্রের খবর, অভিযুক্ত ব্যক্তি পেশায় সেনা কর্মী এবং হরিয়ানার বাসিন্দা৷ তার নাম শ্যামচরণ সাউ। নির্যাতিতা টেলি সিরিয়ালের ওই অভিনেত্রী অভিযুক্তের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে৷ শুক্রবার রাতের ওই ঘটনায় অভিযুক্ত জওয়ানকে শনিবার গ্রেফতার করে টিটাগড় থানার পুলিশ। এদিন দুপুরেই ধৃত ওই জওয়ানকে বারাকপুর আদালতে পেশ করে পুলিশ। ধৃত ওই জওয়ানের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগে মামলা দায়ের হয়৷ সেই মতো শনিবার মামলা আদালতে উঠলেও বারাকপুর আদালতের বিচারক এই ঘটনায় অভিযুক্ত জওয়ান শ্যামচরণকে জামিনে মুক্তি করে।

আরও পড়ুন: ড্রাগ মুক্ত সমাজ গড়তে গানকে হাতিয়ার করছে পুলিশ