জয়পুর:  ‘মাথায় বন্দুক তাক করে লিখতে বললেও ‘চোলি কি পিছে কেয়া হ্যায়’ লিখব না’-বক্তা জাভেদ আখতার৷ যাঁর কলম খোলায় হিন্দি ছবির দুনিয়া পেয়েছে বহু অবিস্মরণীয় গান, হিন্দি ছবির গানে অশ্লীলতা নিয়েই এবার মুখ খুললেন তিনি৷

সম্প্রতি জয়পুরের সাহিত্য উৎসবে গান প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে তিনি জানান, মানুষ ছবিতে ধর্ম সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে এত মাতামাতি করছে, কিন্তু ছবির গানের ভাষায় অধঃপতন খেয়াল করছেন না৷ সঙ্গীতকে ভারতীয় সংস্কৃতির অমূল্য উপাদান হিসেবে আখ্যা দিয়ে জাভেদ বলেন, ‘ভারতীয় চলচ্চিত্রে ব্যবহৃত গানের কথা সারা পৃথিবীতে সেরার দাবিদার৷’ ‘আলম আরা’তে পঞ্চাশটি গানের ব্যবহার থেকে শুরু করে, শান্তারাম, গুরু দত্তের ছবির গানের কথা মনে করিয়ে দিয়ে জাভেদজি হিন্দি সিনেমার গানের সোনলি দিনের কথা মনে করিয়ে দেন৷ তাঁর মতে তখনকার ‘বি’ বা ‘সি’ গ্রেড সিনেমাতেও দারুণ সব গান থাকত৷ কিন্তু গানের কথার সে গৌরবের দিন আজ আর নেই বলে তাঁর অভিমত৷

বর্তমান সময়ে গানের কথা নিয়ে যারপরনাই বিরক্ত জাভেদ৷ ‘গন্ধি বাত’ বা ‘চোলি কি পিছে’ ধরনের গানের কথার ব্যাপক সমালোচনা করেছেন তিনি৷ আরও একধাপ এগিয়ে আইটেম সংগুলিকে মাদারির কাঁধে বাঁদরের সঙ্গে তুলনা করেছেন তিনি৷

তাহলে এর সমাধান কি? জাভেদের উত্তর একমাত্র শ্রোতারাই এ জিনিস পাল্টাতে পারেন৷ শ্রোতারা অশ্লীলতাকে বর্জন করলেই গানের কথা আবার তার পুরনো সম্মান ফিরে পাবে৷