ইসলামাবাদ: পাক ক্রিকেট বিস্ফোরণ! হ্যাঁ একে বিস্ফোরণ ছাড়া কীই-বা বলা যায়৷ দেশের একমাত্র বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়কের বিরুদ্ধে ক্রিকেটকে ধ্বংস করার অভিযোগ উঠল৷ ১৯৯২ বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক তথা দেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বিরুদ্ধে এমনই মারাত্মক অভিযোগ আনলেন জাতীয় দলে তাঁরই প্রাক্তন সতীর্থ জাভেদ মিয়াঁদাদ৷

মিয়াঁদাদ দাবি করেছেন যে, জাতীয় দলে তাঁর প্রাক্তন সতীর্থ এবং বর্তমান দেশের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান দেশের ক্রিকেটকে নষ্ট করেছেন। মিয়াঁদাদের মতে, পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডে (পিসিবি) নিয়োগপ্রাপ্ত বর্তমান কর্মকর্তারা জ্ঞান শূন্য এবং ওরা খেলাধুলোকে নষ্ট করেছে।

তাঁর ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশিত একটি ভিডিও-তে মিয়াঁদাদ বলেন, ‘পিসিবি-র সকল কর্মকর্তা খেলাধুলোর এবিসি জানে না। আমি ইমরান খানের সঙ্গে ব্যক্তিগতভাবে দু:খজনক বিষয়ে কথা বলব। আমাদের দেশের জন্য সঠিক নয় এমন কাউকে আমি ছাড়ব না। আপনি বিদেশ থেকে একজনকে (ওয়াসিম খান) এনেছেন৷ সে যদি আমাদের কাছ থেকে চুরি করে তবে আপনি কীভাবে তাকে ধরবেন? পাকিস্তানের সবাই কি মরে গিয়েছে? যে বাইরে থেকে বাইরে থেকে কাউকে আনা দরকার? আমি চাই, পাকিস্তানের জনগণের উত্থান হোক। যদি দেশে ভালো লোক না-থাকত তাহলে বাইরে থেকে কাউকে আনা যেত৷ কিন্তু এমনটা তো নয়৷’

মিয়াঁদাদ আরও উল্লেখ করেছেন যে, দেশে বিভাগীয় ক্রিকেট বন্ধের সিদ্ধান্তের ফলে অনেক তরুণ ক্রিকেটার বেকার হয়ে পড়েছে। তিনি বলেন, ‘বর্তমানে যে খেলোয়াড়েরা খেলছেন, তাদের ক্রিকেটে ভালো ভবিষ্যত থাকা উচিত। আমি চাই না যে, এই খেলোয়াড়েরা ভবিষ্যতে শ্রমিকের কাজ করুক। বিভাগগুলি বন্ধ করার পরে অনেক খেলোয়াড় বেকার হয়ে পড়েছে৷ এখন তারা কর্মসংস্থানের খোঁজ করছে৷ আমি আগেও এটি বলছিলাম, কিন্তু তারা বুঝতে পারেনি৷’

পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড অর্থাৎ পিসিবি-র পরিচালনা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন প্রাক্তন পাক অধিনায়ক৷ শুধু তাই নয়, তাতে পর্যাপ্ত মনোযোগ না-দেওয়ার জন্য পাকিস্তানের বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়কের সমালোচনা করেছেন মিয়াঁদাদ। তিনি বলেন, ‘আমি তোমার (ইমরান খানের) অধিনায়ক ছিলাম৷ এটা অন্যভাবে নিও না। আমিই ছিলাম যে তোমার স্ট্রিং টানতাম। তুমি ভাবো, ক্রিকেট সম্পর্কে তুমি ছাড়া আর কেউ জানে না। তোমার নিজের এবং চারপাশের সম্পর্কে চিন্তাভাবনা শুরু করা উচিত। বেশি দেরি হওয়ার আগে, পিসিবি-তে কোন লোকদের রেখেছো, সে সম্পর্কে তোমার চিন্তাভাবনা শুরু করা উচিত৷’

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও