আমদাবাদ: চতুর্থ টেস্টের আগে দলের স্পিডস্টার জসপ্রীত বুমরাহকে স্কোয়াড থেকে ছেড়ে দিল টিম ইন্ডিয়া। বৃহস্পতিবার অন্তিম টেস্ট শুরু আগে ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে অব্যাহতি চেয়ে নিয়েছেন বুমরাহ। শনিবার বিসিসিআই’য়ের তরফ থেকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। স্কোয়াডে বুমরাহর পরিবর্তে কোনও অন্তর্ভুক্তিও হচ্ছে না বলেও জানানো হয়েছে বোর্ডের তরফ থেকে।

টুইটার মারফৎ বিসিসিআই জানিয়েছে, ‘জসপ্রীত বুমরাহকে ভারতীয় স্কোয়াড থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। জসপ্রীত ব্যক্তিগত কারণে স্কোয়াড থেকে নিজেই অব্যাহতি চেয়ে নিয়েছেন।’ এক মিডিয়া রিলিজের মাধ্যমে বিষয়টি সম্পর্কে জ্ঞাত করেছেন বোর্ড সচিব জয় শাহ। উল্লেখ্য, পরবর্তীতে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সংক্ষিপ্ত ফর্ম্যাটের সিরিজেও এই ফাস্ট বোলারকে বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে। এর আগে পিঙ্ক বল টেস্টের কথা ভেবে চিপকে দ্বিতীয় টেস্টেও বিশ্রাম দেওয়া হয়েছিল বুমরাহকে।

উল্লেখ্য, গত অগাস্টে আইপিএল শুরুর আগে থেকে জৈব বলয়ে ছিলেন বুমরাহ। মরুশহরে আইপিএলে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের জার্সি গায়ে খেতাব জিতে উড়ে গিয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়া সফরে। সেখানে টেস্ট সিরিজে তিন ম্যাচে ১১ উইকেট নিয়ে দেশের ঐতিহাসিক টেস্ট জয়ের অন্যতম কান্ডারি ছিলেন বছর সাতাশের এই স্পিডস্টার। তবে তলপেটে সমস্যার কারণে গাব্বায় চতুর্থ টেস্ট খেলতে পারেননি বুমরাহ। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে চলতি টেস্ট সিরিজে ৪ উইকেট নিয়েছেন তিনি। কিন্তু মোতেরায় পিঙ্ক বল টেস্টে ভারতের ১০ উইকেটে জয়ের ম্যাচে বল হাতে কোনও সাফল্য পাননি মুম্বই ইন্ডিয়ান্স ক্রিকেটার।

ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে চলতি টেস্ট সিরিজে ২-১ ব্যবধানে আপাতত এগিয়ে কোহলিরা। ইংল্যান্ডকে ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে ফাইনালের দৌড় থেকে ছিটকে দিয়ে ফাইনালে টিকিট পাওয়ার লক্ষ্যে এক পা বাড়িয়ে রেখেছে ভারতীয় দল। শেষ টেস্টে ড্র করলেই টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনাল নিশ্চিত করবে কোহলিব্রিগেড। তবে ফাইনালে প্রবেশ করতে না পারলেও ভারতের ফাইনালে যাওয়ার আটকে দিতে পারেন রুটরা।

সেক্ষেত্রে মোতেরায় আগামী ৪ মার্চ থেকে শুরু হওয়া অন্তিম টেস্টে জিততে হবে ইংল্যান্ডকে। তাহলে ফাইনালের ছাড়পত্র পাবে অস্ট্রেলিয়া। অপর দল হিসেবে ফাইনালের টিকিট ইতিমধ্যেই জোগাড় করে ফেলেছে কিউয়িরা।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।