নয়াদিল্লি: এবার ভারত সফর বাতিল করলেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী ইশিহিদে সুগা। জানা গিয়েছে, সম্প্রতি জাপানে করোনার সংক্রমণ বেড়ে চলেছে। তারই জেরে জাপানের প্রধানমন্ত্রী সফর বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। দিন কয়েক আগেই ভারত সফর বাতিল করেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। তিনি ভারতের করোনা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক হওয়াতেই সফর বাতিল করেছেন। ভারতে করোনার সংক্রমণ উদ্বেগজনক পরিস্থিতি তৈরি করেছে। দেশে দৈনিক সংক্রমণ ৩ লক্ষের দোরগোড়ায় পৌঁছেছে। পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃত্যু।

বুধবার সকালে দেশে দৈনিক সংক্রমণের রেকর্ড। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, একদিনে দেশে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ২ লক্ষ ৯৫ হাজার ৪১ জন। মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ২৩ জনের। এই নিয়ে এখনও পর্যন্ত দেশে ১ কোটি ৫৬ লক্ষ ১৬ হাজার ১৩০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১ লক্ষ ৮২ হাজার ৫৫৩। এখনও পর্যন্ত ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে দেশের ১৩ কোটি ১ লক্ষ ১৯ হাজার ৩১০ জনকে।

দিন কয়েক আগেই ভারতে সফর বাতিল করেছিলেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। করোনার কারণে ফের ভারত সফর বাতিল করেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী। চলতি মাসের ২৫ এপ্রিল ভারতে সফরে আসার কথা ছিল তাঁর। গত মার্চ মাসেই তাঁর ডাউনিং স্ট্রিট অফিসের তরফে বরিস জনসনের ভারতে আসার কথা ঘোষণা করা হয়েছিল। তারও আগে চলতি বছরে প্রজাতন্ত্র দিবসে প্রধান অতিথি হিসেবে তাঁকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিল মোদী সরকার। সেই সময় ব্রিটেনে চোখ রাঙাচ্ছিল করোনার নয়া স্ট্রেন। সেই কারণেই সফর বাতিল করতে বাধ্য হয়েছিলেন জনসন।

এবার ভারত সফর বাতিল করলেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী ইশিহিদে সুগা। এবারের তাঁর এই সর যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ ছিল। বিশেষত চিন-ভারত সম্পর্ক নিয়ে জাপানের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে একাধিক বিষয়ে আলোচনার কথা ছিল মোদী সরকারের। তবে করোনা কাঁটায় তা এখন বিশবাঁও জলে। জানা গিয়েছে, জাপানে সম্প্রতি করোনার সংক্রমণ ব্যাপকভাবে বেড়েছে। তার জেরেই জাপানের প্রধানমন্ত্রী ভারত সফর স্থগিত রেখেছেন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.