পোর্তো অ্যালেগ্রে: উপভোগ্য ফুটবলে কোপা আমেরিকায় ‘সি’ গ্রুপের লড়াই জমিয়ে দিল জাপান৷ প্রথম ম্যাচে চিলির কাছে ০-৪ গোলে বিধ্বস্ত হওয়া অতিথি দেশ দ্বিতীয় ম্যাচ আটকে দিল তারকাখচিত উরুগুয়েকে৷ বরং বলা ভালো জাপানের জয়ের সম্ভাবনায় জল ঢেলে লজ্জার হাত থেকে মুক্তি পেল উরুগুয়ে৷

ম্যাচে দু-দু’বার জাপানের কাছে পিছিয়ে পড়েও শেষমেষ ম্যাচ ২-২ গোলে ড্র করে উরুগুয়ে৷ কোজি মিয়োশির জোড়া গোলে দু’বার লিড নেয় জাপান৷ পেনাল্টি থেকে সুয়ারেজ একবার সমতায় ফেরান উরুগুয়েকে৷ দ্বিতীয়বার দুরন্ত হেডারে স্কোর লেভেল করেন হোসে গিমেনেজ৷

গ্রুপের প্রথম ম্যাচে ইকুয়েডরের বিরুদ্ধে ৪-০ গোলের বড় জয় পেয়েছে উরুগুয়েও৷ এবার আমন্ত্রিত দেশ হিসাবে কোপায় অংশ নেওয়া জাপানের বিরুদ্ধে স্বাভাবিকভাবেই ধার ও ভারে অনেক এগিয়ে ছিল সুয়ারেজ, কাভানি, নানদেজ, গডিনদের দল৷ তবে ম্যাচের শুরুতে ঠিক উলটো চিত্র ধরা পড়ে৷ জাপান সংঘবদ্ধ আক্রমণে একাধিকবার ছত্রভঙ্গ করে উরুগুয়ের রক্ষণকে৷

ম্যাচের ২৫ মিনিটের মাথায় টুর্নামেন্টের অন্যতম ফেভারিট উরুগুয়েকে চমকে দিয়ে প্রথম গোল আদায় করে নেয়৷ শিবাসাকির পাস থেকে প্রথমবার সুয়ারেজদের জালে বল জড়ান মিয়োশি৷ ৩০ মিনিটে কাভানি ও উদেয়ার অবজ্ঞাযোগ্য সংঘর্ষে ভিএআরের সাহায্য নিয়ে উরুগুয়েকে বিকর্কিত পেনাল্টি উপহার দেন রেফারি৷ স্পট কিক থেকে গোল করতে ভুল করেননি সুয়ারেজ৷ ৩৬ মিনিটে কাভানির দুরন্ত আক্রমণ জাপানি রক্ষণে প্রতিহত হওয়ায় প্রথমার্ধের স্কোরলাইনে বদল হয়নি৷

দ্বিতীয়ার্ধে দু’দলই বেশ কয়েকটি গোলের সুযোগ তৈরি করে৷ তবে প্রথমে প্রতিপক্ষের গোলমুখ খোলেন সেই মিয়োশি৷ ৫৯ মিনিটে তিনি দ্বিতীয়বার বল জড়ান উরুগুয়ের জালে৷ ৬৬ মিনিটে লোদেইরোর পাস থেকে হেডে গোল করে উরুগুয়েকে ম্যাচে দ্বিতীয়বার সমতায় ফেরান গিমেনেজ৷ ম্যাচের একেবারে শেষ মিনিটে সুয়ারেজ গোলের সহজ সুযোগ হাতছাড়া করায় জয় তুলে নেওয়া সম্ভব হয়নি উরুগুয়ের পক্ষে৷ জোড়া গোল করে স্বাভাবিকভাবেই এই ম্যাচের নায়ক হয়েছেন মিয়েশি৷

জাপান ম্যাচ থেকে এক পয়েন্ট তুলে নেওয়ায় জমে যায় ‘সি’ গ্রুপের লড়াই৷ উরুগুয়ে ২ ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে আপাতত শীর্ষে থাকলেও শেষ ম্যাচের ফলাফলের ভিত্তিতে বদলে যেতে পারে ছবিটা৷ অন্ততপক্ষে ‘সেরা তৃতীয়’র রাস্তা দিয়ে কোয়র্টার ফাইনালে যাওয়ার সুযোগ থাকল জাপানের কাছে৷ তবে তার জন্য শেষ ম্যাচে ইকুয়েডরের বিরুদ্ধে পয়েন্ট তুলতে হবে মিয়োশিদের৷