ঢাকা:  মের শেষ সপ্তাহে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জাপান সফরের সময় বাংলাদেশের সঙ্গে জাপানের আড়াইশ কোটি ডলারের ঋণচুক্তি সই হবে। এমনটাই জানিয়েছেন বিদেশমন্ত্রী আবদুল মোমেন। পর পর তৃতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় আসার পর প্রথমবারের মতো শেখ হাসিনার জাপান সফরের আগে এমনটাই জানানো হল বাংলাদেশ বিদেশদফতরের তরফে। মোমেন জানিয়েছেন, বাংলাদেশে যোগাযোগ, জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাত এবং শিল্পায়নের জন্য জাপান এই ঋণ সহায়তা দেবে। ৪০তম এই ঋণ প্যাকেজ আগেরবারের চেয়ে ৩৫ শতাংশ বেশি।

এই ঋণ দিয়ে মাতারবাড়ি সমুদ্র বন্দর উন্নয়ন প্রকল্প, ঢাকা মাস র‌্যাপিড ট্রানজিট ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট (লাইন ১), বিদেশি বিনিয়োগ সহায়ক প্রকল্প (২), জ্বালানি দক্ষতা ও সুরক্ষা সহায়ক প্রকল্প (পর্যায়-২) ও মাতারবাড়ি আল্ট্রা সুপার ক্রিটিক্যাল কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র প্রকল্পে (৫) বিনিয়োগ করা হবে বলে মন্ত্রী জানান।

২৮-৩০ মের সফরে শেখ হাসিনার সঙ্গে জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক হবে। শীর্ষ ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বিষয়ে বৈঠকে অংশ নেবেন শেখ হাসিনা। জাপানি উন্নয়ন সংস্থা জাইকার প্রেসিডেন্ট প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করবেন। ওআইসি সম্মেলনে যোগ দিতে শুক্রবার টোকিও থেকে জেদ্দায় যাবেন প্রধানমন্ত্রী। সেখান থেকে ফিনল্যান্ডে যাবেন তিনি। তিন দেশ সফর শেষে ৮ জুন প্রধানমন্ত্রী দেশে ফিরবেন বলে জানিয়েছেন সে দেশের বিদেশমন্ত্রক।

জাপান ও সৌদি আরব সফরে প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গী হিসেবে থাকছেন বিদেশদফতরের প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম। আর জেদ্দায় ওআইসির সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী যোগ দেওয়ার আগে সেখানে উপস্থিত হবেন বিদেশমন্ত্রী আব্দুল মোমেন।