ফাইল ছবি

টোকিও: উত্তর কোরিয়া থেকে পরমাণু হুমকি ক্রমশ বাড়ছে। বারবার জাপানের উপর দিয়ে মিসাইল গিয়ে পড়ছে সমুদ্রে। আর এই পরিস্থিতি সামাল দিতে একধাক্কায় অনেকখানি বরাদ্দ বাড়িয়ে দিল জাপান। আগামী বছরের জন্য তাদের সামরিক খাতে বরাদ্দ বেড়ে হয়েছে ৪৬ বিলিয়ন ডলার।

সূত্রের খবর, এই ব্যাপক বাজেটে তারা মিসাইল রেঞ্জ বাড়াবে জাপান। ২০১৮-র জন্য তাদের মোট বরাদ্দ হল ৯৬.৭১ ট্রিলিয়ন। এর মধ্যে ৭৩০ মিলিয়ন রাখা হয়েছে মার্কিন মিসাইলের জন্য। উত্তর কোরিয়া ও চিনের সামরিক বাড়বাড়ন্তের কথা মাথায় রেখে বরাবরই এই ক্ষেত্রে জোর দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে। এই বাজেটের মধ্যেই মিসাইল শিল্ড যুক্ত করবে জাপান, মেরামত করবে ডেস্ট্রয়ারগুলি। মিসাইল ইন্টারেসেপ্টরগুলির রেঞ্জ আরও বাড়ানোর জন্য ৪৪ বিলিয়ন ইয়েন রেখেছে জাপান।

জাপানের এয়ার ডিফেন্স কমান্ড আপগ্রেড করার জন্য ৪.৭ বিলিয়ন ব্যবহার করা হবে। যাতে যে কোনও জায়গা থেকে মিসাইল উৎক্ষেপণ করা সম্ভব হয়। মিসাইল ডিফেন্স সংক্রান্ত বিষয়ে খরচ করা হবে আরও ৬২.২ বিলিয়ন। ব্যালিস্টিক মিসাইলের জন্য জাপান এই বাজেটে ২ ট্রিলিয়ন বেশি বরাদ্দ করছে।

আরও ছ’টি F-35A ফাইটার জেট কিনতে ৭৮.৫ বিলিয়ন খরচ করবে জাপান আর চারটি V-22 বিমান কিনতে খরচ হবে ৩৯.৩ বিলিয়ন। ৩৯০০ টনের নতুন ডেস্ট্রয়ার তৈরিতে জাপানের খরচ হবে ৯২.২ বিলিয়ন। এছাড়া সাবমেরিন তৈরির জন্য বরাদ্দ করা হচ্ছে ৬৯.৭ বিলিয়ন।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি ও অগাস্টে মিসাইল ছুঁড়েছে উত্তর কোরিয়া।