শ্রীনগর: ঘোর সমস্যায় জম্মু-কাশ্মীর ক্রিকেট অ্যাসেসিয়েশন৷ প্রথমত, সরকারি তরফে নিরাপত্তজনীত নিশ্চয়তা না-মেলায় উপত্যকার বাইরে ক্রিকেট টিম পাঠানো নিয়ে দুশ্চিন্তায় অ্যাসেসিয়েশন কর্তারা৷ তার থেকেও বড় প্রতিবন্ধকতা ক্রিকেটারদের সঙ্গে যোগাযোগ করা৷ ক্যাপ্টেন পারভেজ রসুল-সহ জম্মু-কাশ্মীরের বেশিরভাগ ক্রিকেটারদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেনি সংশ্লিষ্ট অ্যাসোসিয়েশন৷ তাই বিশাখাপত্তনমে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া প্রাক মরশুম প্রস্তুতি টুর্নামেন্ট ভিজি ট্রফি থেকে নাম তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল জেকেসিএ৷

জেকেসিএ’র তরফে দাবি করা হয় যে রাজ্যপালের কাছে চিঠি লিখেও নিরাপত্তা নিয়ে কোনও নিশ্চয়তা মেলেনি৷ যদিও সংস্থার সিইও শাহ বুখারি জানান যে, রাজ্যপালকে চিঠি লেখার প্রসঙ্গ তাঁর জানা নেই৷ তবে ক্রিকেটারদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে না পারার প্রসঙ্গকে তিনি ভিজি ট্রফি থেকে সরে দাঁড়ানোর প্রধান কারণ বলে বর্ণনা করেন৷

আরও পড়ুন: কোহলিকে ‘বিরাট’ সম্মান দিল্লি ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের

বুখারির কথায়, ‘উপত্যকার পরিস্থিতি উন্নতি হচ্ছে৷ তবে এখনও যা অবস্থা, তাতে ভিজি ট্রফিতে দল পাঠানো আমাদের পক্ষে সম্ভব নয়৷ সব থেকে বড় সমস্যা হলো ক্রিকেটারদের সঙ্গে যোগাযোগ করা৷ অ্যাসেসিয়েশনে সব ক্রিকেটারের ফোন নম্বর রয়েছে৷ তবে কেউই তাঁদের ল্যান্ড-লাইন নম্বর দেয়নি৷ এখনকার সময়ে ল্যান্ড-লাইন ব্যববার করে খুব কম লোকে৷ সবার মোবাইন নম্বর রয়েছে আমাদের কাছে৷ যেহেতু উপত্যকায় মোবাইল ফোন কাজ করছে না, তাই ক্যাপ্টেন পারভেজ রসুল-সহ দলের বেশিরভাগ ক্রিকেটারদের সঙ্গে আমরা কথা পর্যন্ত বলতে পারিনি৷ এমনকি আমরা জানিনা পর্যন্ত যে রসুল এই মুহূর্তে কোথায় রয়েছে৷’

আরও পড়ুন: টেস্ট ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথম ‘কনকাশন রিপ্লেসমেন্ট’, স্মিথের বদলি ল্যাবুশেন

পরে বুখারি আরও বলেন যে, ‘ক্রিকেটারদের খোঁজার জন্য আমরা গাড়ি পাঠাতে পারতাম৷ তবে আমরা জানি না তাদের গ্রামের বর্তমান পরিস্থিতি কেমন৷ তাই কোনও ঝুঁকি নিতে চাইনি৷ যেহেতু এটা একটা স্থানীয় টুর্নামেন্ট, কোনও বিসিসিআই টুর্নামেন্ট নয়, তাই এই মরশুমে ভিজি ট্রফিতে না-দল পাঠানোই শ্রেয় মনে হয়েছে আমাদের৷’