নয়াদিল্লি : ভারতের জম্মু ও কাশ্মীর রাজ্যটিকে ভেঙে আজ কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে আত্মপ্রকাশ করল জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখ। বিষয়টি নিয়ে প্রথম থেকেই বিরোধিতা দেখিয়েছে চিন। কিন্তু বৃহস্পতিবার ভারতের বিরুদ্ধে তোপ দেগে চিনের তরফে বলা হয়, ভারত সরকারের এই পদক্ষেপ “বেআইনি”। লাদাখের প্রসঙ্গে চিন জানিয়েছে, এই এলাকা চিনের প্রশাসনিক এক্তিয়ারের মধ্যে পড়ে।

প্রতিবেশী রাষ্ট্রের বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র বলেন, ভারতের উচিত “চিনের ভুখণ্ডের সার্বভৌমত্ত্বকে” সম্মান জানানো, এবং “সীমান্ত এলাকায় শান্তি ও স্থিতাবস্থা ফেরানো”।

এর তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে ভারত। দেশের বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র রবীশ কুমার চিনকে নিশানা করে পাল্টা বলেন, ‘‘ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে অন্য কেউ নাক গলাক, এটা ভারত কখনও চায় না।’’ তিনি স্পষ্ট বলেন, “চিন হোক বা অন্য কোনও দেশ, আমরা কখনও চাই না, , ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় নিয়ে কথা বলুক। “

অন্যদিকে ভারতের এই পদক্ষেপের তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে পাকিস্তানও। ইমরান খান আন্তর্জাতিক মঞ্চে বারবার ভারতের পদক্ষেপের তীব্র সমালোচনা করেছে। যদিও পাকিস্তানের এই দাবি কলকে পায়নি আন্তর্জাতিক মহলের সামনে।