ফাইল ছবি

শ্রীনগর: সেনা-জঙ্গি সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে উঠল কাশ্মীর৷ বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বুদগামে শুরু হয় গুলির লড়াই৷ সেনার কাছে খবর আসে, এখানে গা ঢাকা দিয়ে আছে জঙ্গিরা৷ তাদের খুঁজতেই সেখানে শুরু হয় তল্লাশি অভিযান৷ পরে যা রূপ নেয় গুলির লড়াইয়ে৷

সংবাদসংস্থা এএনআই জানিয়েছে, বুদগামের জাগু এরিজালে চলছে এনকাউন্টার৷ অন্তত ২-৩ জঙ্গি এখানে লুকিয়ে আছে বলে খবর৷

গত তিনদিনের ব্যবধানে এই নিয়ে তিনটি এনকাউন্টার৷ এর আগে মঙ্গলবার পুলওয়ামাতে সেনা ও সন্ত্রাসবাদীদের মধ্যে প্রবল গুলির লড়াই বাধে৷ ওইদিনই ত্রালে সেনা অভিযানে খতম হয় দুই জয়েশ জঙ্গি৷ তাদের একজন আবার স্বয়ং মাসুদ আজহারের এক আত্মীয়৷ সম্পর্কে ওই জঙ্গি জয়েশ প্রধানের ভাইপো৷

জয়েশ-ই-মহম্মদ জঙ্গি সংগঠনের তরফে এই খবরের সত্যতা স্বীকার করে নেওয়া হয়৷ স্থানীয় একটি সংবাদসংস্থাকে ইমেল করে ওই জঙ্গি সংগঠন এই খবর জানিয়েছে৷ সেখান থেকেই জানা যায়, মৃত জঙ্গির নাম মহম্মদ উসমান৷ সে জয়েশ প্রধানের ভাইপো হয়৷

দ্বিতীয় নিহত জঙ্গির নাম শওকত আহমেদ৷ সে স্থানীয় বাসিন্দা৷ বিভিন্ন ইনটেলিজেন্স সূত্র মারফত খবর পেয়ে দক্ষিণ কাশ্মীরের ত্রালের একাধিক জায়গায় তল্লাশি অভিযান চালায় নিরাপত্তা বাহিনী৷ তখনই ওই দুই জঙ্গির সন্ধান মেলে৷ শুরু হয় দু’পক্ষের তীব্র গুলির লড়াই৷ পরে নিরাপত্তাবাহিনীর গুলিতে খতম হয় দুই জঙ্গি৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।