কেপ টাউন: দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে কেপ টাউন টেস্টে ব্যক্তিগত নজির গড়লেন ইংল্যান্ড অল-রাউন্ডার বেন স্টোকস ও পেসার জেমস অ্যান্ডারসন৷ জিমি যথারীতি বল হাতে মাইলস্টোন স্থাপণ করলেও স্টোকস অবশ্য ব্যাট বা বল হাতে নয়, রেকর্ড গড়েন ফিল্ডিংয়ে৷

নিউল্যান্ডসে দক্ষিণ আফ্রিকার প্রথম ইনিংসে বল হাতে উইকেট পাননি স্টোকস৷ তবে তিনি মোট পাঁচটি ক্যাচ ধরেন৷ অ্যান্ডারসনের বলে তিনটি এবং ব্রড ও স্যাম কারানের বলে ১টি করে ক্যাচ তালুবন্দি করেন৷ উইকেটকিপার ছাড়া অন্য কোনও ফিল্ডারের টেস্টের এক ইনিংসে ক্যাচ ধরারা নিরিখে এটি যুগ্মভাবে বিশ্বরেকর্ড৷ ১২ তম ক্রিকেটার হিসাবে টেস্টের এক ইনিংসে পাঁচটি ক্যাচ ধরেন ব্রিটিশ অল-রাউন্ডার৷

আরও পড়ুন: গুয়াহাটিতে ভারত-শ্রীলঙ্কা প্রথম টি-২০ পরিত্যক্ত

শেষবার এমন কৃতিত্ব দেখিয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ার স্টিভ স্মিথ৷ ২০১৮ সালে কেপ টাউনেই এক ইনিংসে পাঁচটি ক্যাচ ধরেছিলেন স্মিথ৷ উল্লেখযোগ্য বিষয় হল স্টোকস পাঁচটি ক্যাচই দ্বিতীয় স্লিপে দাঁড়িয়ে তালুবন্দি করেন৷ টেস্টের এক ইনিংসে পাঁচটির বেশি ক্যাচ ধরার নজির এখনও পর্যন্ত নেই৷

স্টোকস সার্বিকভাবে যুগ্ম রেকর্ডেধারীতে পরিণত হলেও ইংলিশ ক্রিকেটে এমন কীর্তিধারী তিনিই একমাত্র ক্রিকেটার৷ অর্থাৎ, এর আগে ইংল্যান্ডের কোনও ক্রিকেটার টেস্টের এক ইনিংসে ৫টি ক্যাচ ধরেননি৷

আরও পড়ুন: যুবরাজের ছয় ছক্কার স্মৃতি ফিরল কিউয়ি তারকার ব্যাটে

অন্যদিকে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে প্রথম ইনিংসে ৪০ রানের বিনিময়ে ৫ উইকেট দখল করেন অ্যান্ডারসন৷ সব মিলিয়ে এটি তাঁর টেস্ট কেরিয়ারের ২৮তম ইনিংসে পাঁচ উইকেটের নজির৷ এই নিরিখে তিনি কিংবদন্তি ইয়ান বোথামকে টপকে ইংলিশ ক্রিকেটে সবার উপরে উঠে আসেন৷ অর্থাৎ, টেস্টের এক ইনিংসে সব থেকে বেশি বার ৫ উইকেট নেওয়া ব্রিটিশ বোলারে পরিণত হলেন অ্যান্ডারসন৷ সার্বিকভাবে তিনি উঠে এলেন এই তালিকার সাত নম্বরে৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।