স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: সাত সকালে স্বামীকে হিড়হিড়িয়ে টেনে নিয়ে এসেছে বাপের বাড়িতে৷ না না কোনও সালিশি সভার জন্য নয়৷ মা-বাবা যে আদরের জামাইকে ষষ্ঠী খাওয়াবেন৷ মেয়েকে বলে দিয়েছেন সক্কাল সক্কাল চলে আসতে৷ সকাল আটটার পর যে আর পথেঘাটে বেরোনে যাচ্ছে না৷ আবহাওয়া দফতরও শুনিয়ে রেখেছেন, লু বইবে দিনভর৷ তাপমাত্রা বেড়ে কোথায় গিয়ে ঠেকবে তা ঠাওর করতে পারছে না হাওয়া অফিসও৷

চক্রবর্তীবাবুরও মেয়ের নতুন বিয়ে হয়েছে৷ এ বছরই প্রথমবার ষষ্ঠীতে জামাই আসছেন শ্বশুরবাড়ি৷ মেয়ে-জামাইকে গলদা, পাবদা, পাঠার মাংস ছাড়া কি খেতে দেওয়া যায়! ওদিকে আবার পাঁচ পদ ভাজা, আম, জাম, লিচুও আনতে হবে৷ ষষ্ঠীর বাজার যে অগ্নিমূল্য হয় তা তো জানেনই তিনি৷ তাই সোমবারই সবজি বাজারটা সেরে রেখেছেন৷

আরও পড়ুন: এভাবেও খোঁজ মেলে পুরনো কোনও রাস্তার!

একদিকে চিড়বিড়ে গরম, অন্যদিকে মহার্ঘ্য মাছ, মাংস, ফল, সবজি৷ এই দুই বাজার গরম করা খবরের মধ্যেই মঙ্গলবার জামাইষষ্ঠীর আয়োজন বাঙালির ঘরে ঘরে৷ এদিন বাজারদরও ছ্যাঁকা মারছে হাতে৷ সবজি বাজারও যেমন চড়া৷ মাছ, মাংসেও রোজকার থেকে দাম বেড়েছে৷ এ বছর বাজারে মাছের চাহিদাটাই বেশি৷ জামাইয়ের পাতে মাংস দিতে চাইছেন না অনেকেই৷ তাই মাছের বাজার দর বেশ চড়া৷ অন্যান্য দিনের তুলনায় পারশে, পাবদা দুই ধরনের মাছই প্রায় ১০০ টাকা করে বেশি৷ তুলনামূলক মাংসের দাম খুব সামান্যই বেড়েছে৷ ১০-১৫ টাকা কেজি প্রতি৷ ফলেরও দামও বেড়েছে অনেকটাই৷

অন্যদিকে আবহাওয়া দফতর সোমবারই জানিয়ে রেখেছিল মঙ্গলবারের তাপমাত্রা আরও বাড়বে৷ এদিন সকাল থেকে হাড়ে হাড়ে তা টের পাচ্ছে দক্ষিণবঙ্গবাসী৷ কলকাতা-সহ বিভিন্ন জেলাতে তাপমাত্রা বেড়েই চলেছে৷ ৪১ ডিগ্রি ছুঁয়েছে ইতিমধ্যেই৷ সঙ্গে গরম হাওয়ার হল্কা৷ নাক, মুখ ঢেকেও রক্ষা মিলছে না! আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, গত কয়েকদিনের মধ্যে মঙ্গলবার রেকর্ড তাপমাত্রা ছুঁতে পারে গরম৷ কলকাতা-সহ গোটা দক্ষিণবঙ্গেই চলবে তাপপ্রবাহ৷ বাড়বে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ৷ যার জেরে চরম অস্বস্তি বাড়বে৷ মনে করা হচ্ছে এ বছর যে গরম পড়তে চলেছে তা গত দশ বছরেও পড়েনি৷

আরও পড়ুন: জন্মদিনে রাহুলের দীর্ঘায়ু কামনায় টুইট নরেন্দ্র মোদীর

সরকারি স্কুলগুলি খোলার পরও ফের ছুটি ঘোষণা করেছে৷ বেশ কিছু বেসরকারি স্কুলও আগামীকাল থেকে ছুটি ঘোষণা করেছে৷ বাকিরাও হয়তো সে পথেই হাঁটবে৷ অন্তত পড়ুয়াদের সুস্থতার কথা ভেবে তেমনটাই করা উচিৎ বলে মনে করছেন অভিভাবকরা৷ ক্রমেই শক্তি হারাচ্ছে মৌসুমি বায়ু৷ সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়েই মাথাচাড়া দিচ্ছে পশ্চিম ও উত্তর পশ্চিম বায়ু৷ পশ্চিম ও উত্তর পশ্চিমি বাতাসের অবস্থান আপাতত বাতাসের নিম্নভাগে৷ ফলে ক্রমেই গরম হচ্ছে ভূ-ভাগ৷

এর জেরে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে তাপপ্রবাহ বইছে৷ পাশাপাশি অন্ধ্রপ্রদেশ, ওড়িশা, ঝাড়খন্ড, বিহারেও চলছে তাপপ্রবাহ৷ এরফলে বঙ্গে বইছে লু৷ তাই জামাই-শাশুড়ির সুসম্পর্কের প্রকাশ এবছর পাতে কম হলেই ভাল হয় বলছেন চিকিৎসকরা৷ এই গরমে যতটা সম্ভব সহজপাচ্য খাবার খাওয়াই বুদ্ধিমানের কাজ হবে৷ ভোরবেলা যারা শ্বশুরবাড়ি পৌঁছতে পারছেন না৷ সূর্য পশ্চিমে গা এলালে তবেই ফের সে পথে বের হওয়া ভালো৷

আরও পড়ুন: বিরুষ্কার সমর্থনে এবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কিরণ রিজিজু