স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: সাত সকালে স্বামীকে হিড়হিড়িয়ে টেনে নিয়ে এসেছে বাপের বাড়িতে৷ না না কোনও সালিশি সভার জন্য নয়৷ মা-বাবা যে আদরের জামাইকে ষষ্ঠী খাওয়াবেন৷ মেয়েকে বলে দিয়েছেন সক্কাল সক্কাল চলে আসতে৷ সকাল আটটার পর যে আর পথেঘাটে বেরোনে যাচ্ছে না৷ আবহাওয়া দফতরও শুনিয়ে রেখেছেন, লু বইবে দিনভর৷ তাপমাত্রা বেড়ে কোথায় গিয়ে ঠেকবে তা ঠাওর করতে পারছে না হাওয়া অফিসও৷

চক্রবর্তীবাবুরও মেয়ের নতুন বিয়ে হয়েছে৷ এ বছরই প্রথমবার ষষ্ঠীতে জামাই আসছেন শ্বশুরবাড়ি৷ মেয়ে-জামাইকে গলদা, পাবদা, পাঠার মাংস ছাড়া কি খেতে দেওয়া যায়! ওদিকে আবার পাঁচ পদ ভাজা, আম, জাম, লিচুও আনতে হবে৷ ষষ্ঠীর বাজার যে অগ্নিমূল্য হয় তা তো জানেনই তিনি৷ তাই সোমবারই সবজি বাজারটা সেরে রেখেছেন৷

আরও পড়ুন: এভাবেও খোঁজ মেলে পুরনো কোনও রাস্তার!

একদিকে চিড়বিড়ে গরম, অন্যদিকে মহার্ঘ্য মাছ, মাংস, ফল, সবজি৷ এই দুই বাজার গরম করা খবরের মধ্যেই মঙ্গলবার জামাইষষ্ঠীর আয়োজন বাঙালির ঘরে ঘরে৷ এদিন বাজারদরও ছ্যাঁকা মারছে হাতে৷ সবজি বাজারও যেমন চড়া৷ মাছ, মাংসেও রোজকার থেকে দাম বেড়েছে৷ এ বছর বাজারে মাছের চাহিদাটাই বেশি৷ জামাইয়ের পাতে মাংস দিতে চাইছেন না অনেকেই৷ তাই মাছের বাজার দর বেশ চড়া৷ অন্যান্য দিনের তুলনায় পারশে, পাবদা দুই ধরনের মাছই প্রায় ১০০ টাকা করে বেশি৷ তুলনামূলক মাংসের দাম খুব সামান্যই বেড়েছে৷ ১০-১৫ টাকা কেজি প্রতি৷ ফলেরও দামও বেড়েছে অনেকটাই৷

অন্যদিকে আবহাওয়া দফতর সোমবারই জানিয়ে রেখেছিল মঙ্গলবারের তাপমাত্রা আরও বাড়বে৷ এদিন সকাল থেকে হাড়ে হাড়ে তা টের পাচ্ছে দক্ষিণবঙ্গবাসী৷ কলকাতা-সহ বিভিন্ন জেলাতে তাপমাত্রা বেড়েই চলেছে৷ ৪১ ডিগ্রি ছুঁয়েছে ইতিমধ্যেই৷ সঙ্গে গরম হাওয়ার হল্কা৷ নাক, মুখ ঢেকেও রক্ষা মিলছে না! আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, গত কয়েকদিনের মধ্যে মঙ্গলবার রেকর্ড তাপমাত্রা ছুঁতে পারে গরম৷ কলকাতা-সহ গোটা দক্ষিণবঙ্গেই চলবে তাপপ্রবাহ৷ বাড়বে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ৷ যার জেরে চরম অস্বস্তি বাড়বে৷ মনে করা হচ্ছে এ বছর যে গরম পড়তে চলেছে তা গত দশ বছরেও পড়েনি৷

আরও পড়ুন: জন্মদিনে রাহুলের দীর্ঘায়ু কামনায় টুইট নরেন্দ্র মোদীর

সরকারি স্কুলগুলি খোলার পরও ফের ছুটি ঘোষণা করেছে৷ বেশ কিছু বেসরকারি স্কুলও আগামীকাল থেকে ছুটি ঘোষণা করেছে৷ বাকিরাও হয়তো সে পথেই হাঁটবে৷ অন্তত পড়ুয়াদের সুস্থতার কথা ভেবে তেমনটাই করা উচিৎ বলে মনে করছেন অভিভাবকরা৷ ক্রমেই শক্তি হারাচ্ছে মৌসুমি বায়ু৷ সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়েই মাথাচাড়া দিচ্ছে পশ্চিম ও উত্তর পশ্চিম বায়ু৷ পশ্চিম ও উত্তর পশ্চিমি বাতাসের অবস্থান আপাতত বাতাসের নিম্নভাগে৷ ফলে ক্রমেই গরম হচ্ছে ভূ-ভাগ৷

এর জেরে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে তাপপ্রবাহ বইছে৷ পাশাপাশি অন্ধ্রপ্রদেশ, ওড়িশা, ঝাড়খন্ড, বিহারেও চলছে তাপপ্রবাহ৷ এরফলে বঙ্গে বইছে লু৷ তাই জামাই-শাশুড়ির সুসম্পর্কের প্রকাশ এবছর পাতে কম হলেই ভাল হয় বলছেন চিকিৎসকরা৷ এই গরমে যতটা সম্ভব সহজপাচ্য খাবার খাওয়াই বুদ্ধিমানের কাজ হবে৷ ভোরবেলা যারা শ্বশুরবাড়ি পৌঁছতে পারছেন না৷ সূর্য পশ্চিমে গা এলালে তবেই ফের সে পথে বের হওয়া ভালো৷

আরও পড়ুন: বিরুষ্কার সমর্থনে এবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কিরণ রিজিজু

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.