জলপাইগুড়ি: স্মারকলিপি জমা দিতে গিযে মহকুমাশাসকের রোষের মুখে পড়ল জলপাইগুড়ি শহর বিজেপি নেতৃত্ব৷ মঙ্গলবার নাগরিকত্ব আইনের সমর্থনে জলপাইগুড়ি শহরে মিছিল করে বিজেপি৷ জলপাইগুড়ি শহরে ক্রমেই বাড়ছে অপরাধমূলক কাজকর্ম, শহরের একাধিক এলাকায় নেশার আখড়া হয়ে উঠছে, এই অভিযোগ তুলে এদিন মহকুমাশাসককে স্মারকলিপি জমা দিতে যায় বিজেপি নেতৃত্ব৷

মঙ্গলবার সকালে জলাপাইগুড়ি মহকুমাশাসকের দফতরে উত্তেজনা ছড়ায়৷ স্মারকলিপি জমা দিতে গিয়ে মহকুমাশাসকের সঙ্গে বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়েন বিজেপি নেতারা৷ শহরে অপরাধ বাড়লেও প্রশাসন নিষ্ক্রিয় ভূমিকা পালন করছে বলে অভিযোগ তোলেন বিজেপি নেতারা৷ স্মারকলিপি জমা দিতে গিয়েছিলেন বিজেপি যুব মোর্চার জলপাইগুড়ি জেলা যুব মোর্চার সভাপতি শ্যাম প্রসাদ-সহ বিজেপি নেতারা৷ শহরে অপরাধ বাড়ছে বলে মহকুমাশাসককে অভিযোগ জানান বিজেপি নেতারা৷

উত্তরে মহকুমাশাসক রঞ্জন কুমার দাস বলেন, ‘আপনারাও ধোয়া তুলসীপাতা নন৷ খোঁজ নিয়ে দেখুন, এর সঙ্গে আপনাদের লোকেরাও এর সঙ্গে জড়িত থাকতে পারে৷’ মহকুমাশাসকের মুখে এমন কথা শোনে উত্তেজিত হয়ে পড়েন বিজেপি নেতারা৷ মহকুমাশাসকের কার্যালয়েই এরপর শুরু হয়ে যায় তীব্র বাদানুবাদ৷ তৃণমূলের মদতে মহকুমাশাসক রঞ্জন কুমার দাস এমন মন্তব্য করছেন বলে অভিযোগ তোলেন বিজেপি নেতারা৷

পরিস্থিতি সামাল দিতে এগিয়ে আসেন মহকুমাশাসকের দফতরে কর্মরত একাধিক আধিকারিক ও সরকারি কর্মী৷ সরকারি কর্তা হয়ে একটি রাজনৈতিক দলের উদ্দেশ্যে এই মন্তব্য করায় ক্ষোভে ফেটে পড়ে বিজেপি নেতৃত্ব৷ এই প্রসঙ্গে বিজেপি নেতা শ্যাম প্রসাদ বলেন, ‘শহরে মিছিল-মিটিং করার অনুমতি দেওয়া হচ্ছে না বিজেপিকে৷ অথচ তৃণমূল-সহ বাকি দলগুলি সহজেই সভা-মিছিল করার অনুমতি পাচ্ছে৷ প্রশাসন তৃণমূলের দলদাসে পরিণত হয়েছে৷ আমরা জলপাইগুড়ি শহরে অপরাধমূলক কাজ বাড়ছে বলে অভিযোগ জানাতে যাই৷ উলটে আমাদেরই অপরাধী বানিয়ে দিলেন মহকুমাশাসক৷ তৃণমূলের হয়ে কাজ করছেন মহকুমাশাসক রঞ্জন কুমার দাস৷

এদিকে, বিজেপি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বাদানুবাদের প্রসঙ্গটি স্বীকার করে নিয়েছেন মহকুমাশাসক রঞ্জন কুমার দাস৷ এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘স্মারকলিপি জমা দিতে এসে প্রশাসনের বিরুদ্ধেই দুর্নীতিতে যুক্ত থাকার অভিযোগ তোলেন বিজেপি নেতারা৷ ওঁদের অভিযোগের ভিত্তি নেই৷ ওঁদেরই কেউ এসব কাজে যুক্ত বলে মন্তব্য করেছি৷’

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ